আরণ্যক | Aaranyak

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
তিনি পড়তেন তার প্রভাব প্রায় তার অজ্ঞাতসারেই তার রচনায় প্রতিফলিত হত। “আরণ্যক*-এও তা হয়েছে! ইতিহাস, বিশেষতঃ প্রাচীন ইতিহাস সম্বন্ধে তার কৌতুহল ও অনুসন্ধৎসার দীর্ঘায়িত পরিচয় পাওয়। যাবে একাদশ পরিচ্ছেদের দ্বিতীয় অংশে এবং আরও BMA; ভূগোল ও ডুবিদ্যা-সংক্রান্ত জ্ঞানের আভাস মিলবে WW পরিচ্ছেদের চতুর্থ অংশে এবং অনাত্র; জ্যোতিবিজ্ঞান ও ব্যোমবিজ্ঞান-সম্বল্নীয় বহু উল্লেখ-অলঙ্কারের মধ্যে একটির সন্ধান মিলবে তৃতীয় পরিচ্ছেদের তৃতীয় অংশে । এত কিছু airy কিন্তু কোথাও বিদ্যার আস্ফালন বা জ্ঞানের TE নেই। সব কিছু মিলে মিশে একাবার হয়ে উপন্যাসের রসপুষ্টি সাধন করছে--_উপম্যাসের ঘাড়ে বোঝা হয়ে চেপে বসে নি।গাছপালা, লতা- BA, ফুল-পাতা-লতা প্রভৃতি সর্বপ্রক'র উদ্ভিজ্জ সম্বন্ধে তার এমন অপরিসীম কৌতূহল ও জ্ঞানস্পৃহা ছিল যে কেউ কেউ তাকে 'বটানিবাতিকপ্রস্ত' বলে ঈষৎ বিদ্রুপ করেছেন। এ বিদ্রাপের সত্যতা সম্বন্ধে সন্দেহের কোন হেতু নেই। মানুষ নিয়ে উপন্যাস রচনা করতে বসে যেমন কোন সাহিত্যিক শুধু "মানবজাতি*র বর্ণনা করেই ক্ষান্ত হতে পারেন না, বিভৃতিভূষণও তেমনি তাব প্রকৃতি-বর্ণনায় শুধু গাছপালা", "লতাপাতা, 'ফুলফল'” প্রভৃতি সাধারণ শব্দ বাবহার করে WEE হতে পারতেন না---প্রতিটি বৃক্ষ, লতা ও ফুল তার কাছে বাষ্টিমানবের মতই নিজ fie বৈশিষ্ট্য মণ্ডিত ইয়ে দেখা দিত ; পৃথক পৃথক ভালে তাদের নাম-রূপের পরিচয় না পাওয়া পর্যন্ত তিনি তৃপ্তিলা্ড করতে পারতেন না। তা দাড়া তার মনের সর্বেশ্বরবাদ-প্রবণতা এদের প্রত্যেকটিকে একটি করে COATS ও অধ্যাত্মসভা বলে ভাবতে শিখিয়োছ্ল SICH 1 এই জনাই 'আরণ্যক”-এ তিনি এত গাহ্‌-লতা-ফুলের আলাদা আলাদা উল্টেখ ও বর্ণনা করেছেন-- এ না করে তার উপায় ছিল না।পূর্বে বলা হয়েছে, “আরণ্যক -এর কোন নায়ক নেই, কিন্তু এন-জন নায়িকা আছেণ। এই নায়িকা প্রকৃতিদেহী স্বয়ং। এক দিক দিয়ে বিচার করলে বলা যায়, তিনি এক বিরাট ট্্যাভোডির নায়িকা, কারণ শেষ পর্যন্ত এই আরণা-প্রকৃতির শোভা ও সৌন্দর্য SRA ace নি ; অরণা-প্রেমিক সত্যচরণ fess এই সুবিস্তীর্ণ অরণ্যভূমিব বনশোভা বিনষ্ট করতে বাধ্য হয়েছিল । বিস্ত এ বিচার শ্রান্তবিচার, এ সিদ্ধান্ত ভ্রাম্তসিদ্ধান্ত। অধ্যাপক রবীন্দ্রকুমার দাশগুপ্ত Has বলেছেন, ** “আরণাক' গ্রস্থখানির মূল বস্তু এক অনুতপ্ত হৃদয়ের বস্তু এমন কথা কবেই বলিবেন না। লেখক গ্রন্থশেষে Bama আদিম দেবতাদেব ক্ষমা প্রার্থনা কবিয়াছেন, কিন্তু তাহাব কাহিনী) এক অনিচ্ছাকৃত পাপকর্মের কাহিনী হিসাবে পবিকল্পিত হয় নাই।"প্রকৃতপক্ষে এই উপন্যাসের কাহিনী এক দ্বিতল কাহিনীঞ্ূপে পারকাল্পত হয়েছে। উপরতলার কাহিনীটি হল সৌন্দর্যের ঝাহনা--_সৌগন্দর্য-ডপভোগের কাহিনী, সৌন্দ্য-অনুধানের কাহিনী এবং সৌনদ্দয-শ্মৃতিন কাহিণা---“Beauty that vanishcs; beauty that passes away ; However rare— rare it be.”’WATS ধ্বংস BRI সঙ্গে সঙ্গে তার ইন্দ্রিয়গ্রাহী সৌন্দর্যও ধ্বংস হযে গেছে। রয়ে গেছে শুধু তার স্মৃতি এবং অতিদূব SAYS তার পুনরাবির্ভাবের আশা--- এরাই ধরে রেখেছে তার অতীন্দ্রিয় অস্তিত্বের আশ্বাস।



Leave a Comment