শিলাইদহ ও রবীন্দ্রনাথ | Shilaidaha O Rabindranath

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
[৮]আজ হাসি পায় সে সব কথা মনে হলে । না জেনে, না পড়ে, না ভেবে রবীন্দ্র-প্রসঙ্গে অবোধের মত যে অবিচার করেছি, তার প্রায়শ্চিত্ত করার ay মনে প্রবল বাসন। মাঝে মাঝেই উকি-ঝুঁকি দিতে আরম্ভ করেছিল কবিপুত্ব বুথীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনন্য গ্রন্থ 'পিতৃস্বতে'র প্রথম প্রকাশকালেই। তারপর সেটা আরও বধিত হল অজিত চক্রবর্তী মহাশয়ের অন্যতম জীবনীগ্রন্থ 'মহবি দেবেন্দ্রনাথ' পুনমুদ্রণ করার সময়ে। ইতিমধ্যে শ্রদ্ধেয় পু'লনবিহারী সেন মহাশয়ের সযে।গা সম্পাদনায় রবীন্দ্রনাথের 'পল্লীপ্রকৃতে' ও 'স্বদেশসমাজ' বইগুলি ও প্রকাশিত হয়েছে। এই গ্রম্ব গুলির সংস্পশে এসে রবীন্দ্রনাথকে একান্ত আপনার করে পেয়েছি, মনে হয়েছে । এই অনকুল পরিস্থিতিতে শ্রদ্ধেয় মধি- কারী মহাশয়ের সঙ্গে পরিচিত হলাম তার বইগুলির পুনরমূদ্রণের প্রসঙ্গে । মাথায় একটা FSB) খেলে গেল ৷ অধিকারী মহাশয়কে দিয়েই তো আমার মনোবামনা চরিতার্থ করা সম্ভব হতে পারে। মনের কথা প্রকাশ না করে সাধারণ ভাবেই সেদিন আলাপ শুরু করলাম। জানতে চাইলাম জমিদার রবীন্দ্রনাথ মম্পর্কে তার অভিজ্ঞতা ও wens) ভদ্রলোক সেদিন যেন ভাবের সমুদ্রে প্লাবিত হলেন , চলে গেলেন THI অতীতে। এক এক করে কত কথাই না বলে গেলেন মানুষ রবীন্দ্রনাথ, জমিদার বণীন্দ্রনাথকে নিয়ে। কথা প্রসঙ্গে একথাও জানালেন, ঠাকুর এস্টেটের একুছন পুরাতন কর্মচারীরূপে তিনি তার জীবনের ছতভিজ্ঞতা ইতিমধ্যে পিখেও ফেপেছেন। উত্মাইবোধে CH লেখাটি দেখতে চাইলাম। দুদিন পরেই তিলি এলপেন aigiafy নিয়ে। এদিনও জমাট আলাপ হণ বইগুপেো আমরা অবশ্যই als করব; তবে কাঁভাবে প্রকাশ করব তা একটু ভেবে দু চার দিন পরে গ্রন্বক1রকে ছানাব,- বললাম। আমার উদ্দেশ্য 'শিলাইদত ও রব ন্দসথ' ন।মে একথানণ আকরগ্রন্থ প্রকাশ করা; এতে থাকবে ঠাকুর এস্টেটের ইতিবুত, ays rad পূরবপ্রকাশিত গন্থমালার কাহিনী গুলির বিময়াহগভাবে fay আর cud সঙ্গে থাকার রবীন্দ্রনাথ- ও শিলাইদহ-সম্পকিত যাবতীয় তথা এবং পলীপ্রক ৩ 3 সমাজ-জীবনের যথালন্ভব পরিচয়। গ্রন্থকারকে ভখনও এসন sa ভেঙে বলিনি, কেবলই অত্যুৎমাছে তাগিদের পর তাগিদ দিচ্ছি তার মনগ্র জীবনের অফুরন্ত ভাওার থেকে বরবীন্দর- নাথ ও শিলাইদহ acy যাবতায় Hey falas seq ফেলবার GT! আমাদ্বের উৎমাছে অধিকারী মহাশয় খুবই অন্গপ্রাণিত বোধ করলেন। এই বৃদ্ধ বয়সেও তিনি যেন যৌবনের শক্তিতে মণ্ডিত হ্লেন। কী উৎসাহ, কী উদ্দীপনা!



Leave a Comment