সপ্তসিন্ধু | Saptasindhu

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
কাধে ধনুক। তুণ ভরা Sal মাথায় তামার শিরষ্তাণ-আর শরীরে সোনার কাজ করা লাল চামড়ার দ্রাপি। ডান কোমরে তরবারী | বাঁহাতে ঘোড়ার ay ata মোটা চামড়ার ঢাল ধরা র্‌য়েছে।সকলের আগে রাজ৷ Assen অরুণ রঙের বিশেষ পারদশী ঘোড়ার পিঠে বসে সকলকে উদ্দেশ্য করে বলে,--বীর ভাই সব, আজ কিলাতদের পুরীতে গিয়ে আমরা Satara করব। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সকালের আগে আমাদের পৌঁছতেই হবে |প্রধানের আদেশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সকল পুরু মেনা উত্তর দিকে রওয়ানা হয় । সংখ্যায় তারা পাঁচ শ-য়ের কিছু বেশি হবে | এরা সকলেই বাছাই করা স্বপুষ্ট, দীর্ঘদেহী যোদ্ধা । . এদের ঘোড়াগুলি অসাধারণ উচু, লম্বা এবং লালরঙের |অন্ধকারের বুক চিরে বিরাট সোনাবাহিনী তীরের মত এগিয়ে চলেছে। শুধু ঘোড়ার খুরের শব্দ BV আর কোথাও কোনে শব্দ নেই। ওদের চেহারা অন্ধকারের মধ্যে মিশে এক হয়ে গেছে।চলতে চলতে ওরা ঘগ.ঘরা নদীর তটে এসে পৌঁছয়। নদীর ধারে রাস্ত শুকনো হলেও সেখান দিয়ে গেলে পাথরের শব্দ হবে; তাই ওরা আরও খানিক ধার থে ষে চলতে থাকে feats নগরীর কাছাকাছি এসে ওরা আরো ASAC চলতে থাকে |ইন্দ্র এবং নিজেদের শক্তির উপর এই পুরুজাতির খুব আস্থ faa, কিলাত অসাধারণ “Bel ওদের দমন করা যথেষ্ট কষ্টসাধ্য |হিমালয়ের পাদদেশে পাহাড়ের গা ঘেঁষে কিলাত গ্রাম। একদিকে পাহাড়ের প্রাচীর আর তিনদিকে মজবুত কাঠের প্রাচীর . এক দিকে পশুদের থাকবার caw বা খোঁয়াড়। পুরে গ্রামটি ঘন জঙ্গলের মধ্যে অবস্থিত।সপ্ডসিন্ম ১১



Leave a Comment