অন্য দিগন্ত [সংস্করণ-১] | Anya Diganta [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
তিনজন যোয়ান পুরুষের কাজ দেয়। ওকে ছাড়লে মুখুজ্জের চলবে কি কারে!শহরে ? বিশ্মিত গলায় মুখুজ্জে প্রশ্ন করল |হ্যা, বিদ্ভেসাগরের হাতে একেবারে তুলে দিয়ে আসি |মুখুজ্জে অনেকখানি হা করে ফেলল । ব্যাপারটা কি? নেশা ভাং পঞ্চানন করে বটে, কিন্তু তার তো সময় আছে। আর কোন দিনই পঞ্চানন মাত্রা ছাড়ায় না। বেষ্ণাস কথা একটি বেরোয় না মুখ দিয়ে।ব্যাপারট! পঞ্চাননই ভাঙ্গল |ওর হাতে আবার গরু বাছুর ছেড়ে দেয় মানুষে। তোমার যেমন she! গাছের ছায়ায় বিশেটা-বই নিয়ে মশগুল আর এদিকে বাছুরদের পোয়া বারো । বাটে আর দুধ রাখছে a |এই ব্যাপার। মুখুজ্জে যেন সাফ ছেড়ে fa! মনে ভেবেছিল কি জানি কোন ছিদ্রপথে এই শনির নজর পড়েছে। পঞ্চায়েতের কর্তাদের YR করতে গাছের ফলপাকুড়, তরি-তরকারি যাবে । তেমন তেমন হলে ঘরের কড়ি |পঞ্চানন বলেই চলল, তাই বলছিলাম, ওকে নিয়ে যাই 1 ARS কলেজে একেবারে খোদ বিদ্যেসাগরের হাতে তুলে দিয়ে আমসি। বলি, নিন মশাই, আপনি যেমন বিদ্ছযেসাগর তেমনি বিদ্ছেপগাড় «za এনেছি। মানুষ করুন |কথা৷ শেষ করে পঞ্চাননের Cosas হাসি । নিজের রসিকতায় নিজেই আত্মহারা |কিন্তু মুখুজ্জে মশাইয়ের মেজাজ তখন সপ্তমে। রক্ত টগবগ করে ফুটছে |চালের বাতা থেকে মোটা লাঠি বের করে বিপুল বিক্রমে ঘোরাতে লাগল।



Leave a Comment