নীহারের মা [সংস্করণ-১] | Niharer Ma [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
নীহারের মাবিলাসকুমার সেদিন নিতান্ত আনমনে রাস্তাদিয়া ইাটিতেছিলেন এমন সময় এক পাগল আসিয়া তাহার পথরোধ sen দীড়াইল | ঝুলি হইতে একটি শিকড় বাহির করিয়া, বিলাসকুমারের হাতে দিয়া বলিল-_তোর স্ত্রীকে এটি খাইয়ে দিস। তার কোন পুত্র সম্ভান হয়নি-- | বিস্মিতমুখে বিলাসকুমার বলিলেন-_তুমি জান্লে কেমন করে ?সহাস্তে পাগল বলিল--আমি জানি। এটি তাকে খাইয়ে দিস তাহলেই তোর সন্তান হবে। সম্ভান SHA হলে মার নামে পূজো দিস। আর যদি ভবিষ্যতে আমার সঙ্গে কোনদিন দেখা করার প্রয়োজন হয় তো কাশীর হরিশ্চন্দ্র ঘাটে খোজ করিস।ভক্তিভরে বিলাসকুমার বলিলেন--কিন্তু বাবার নাম তো জানলুম না, কেমন করে LSI?পাগল বলিল,--আমার নাম শ্রীনাথ পরমহংস বাবাজী; তারপর থানিক থামিয়৷ সে আবার বলিল--ই্যা, আর একট! বিষয়ে তোকে সাবধান করে দিই। তোর স্ত্রীকে কিন্তু এসব কথা শোনালে নবজাত শিশ্তর মৃত্যু ঘটবে |সন্ন্যাসী আর সেখানে একমুহূর্তও দাড়াইল না। নিমেষে কোথায় যেন মিলাইয়। গেল I—কিছুদিন পরের ঘটনা-_শ্রাবণের এক বর্ষণমুখর রাত্রি । অবিশ্রান্ত জল-ধারায় রাস্তা! ঘাট ভাসিয়া যাইতেছে। রাস্তায় লোক চলাচল নাই বলিলেই হয়। গাড়ী ঘোড়ার ভীড় sf আসিয়াছে। সমস্ত সহর যেন মরিয়া গিয়াছে।9



Leave a Comment