এই পৃথিবীর পান্থনিবাস | Ei Prithibi Panthanibas

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
অজয়বাবু সায় দিতেই হিমাস্দ্রিবাবু ঠাকুরের উদ্দেশে থাকডাক SAG করতে নেমে গেলেন।আর রুমা চাপ স্বরে বললে, কি fafa হোটেলের |রেশম কিন্তু দিদির মত গলার স্বরটা চেপে রাখতে পারলো না। প্রায় চিৎকার করেই বলে উঠলো, ধর্মশাল। মা, ধর্মশালা |মিস্টার সেনও হাসলেন |ইতিমধ্যে একটা ট্রাঙ্ক আর একটা বেডিং ঘাড়ে করে যে এসে দাড়ালো, তার দিকে তাকিয়ে wise হয়ে গেল চারজনেই | একাধারে স্তম্ভিত আর বিরক্ত |এই নাকি কৌতুকী ? কৌতুক সত্যিই তার চেহারার কোন্‌ জায়গায় তা কেউই খুঁজে পেল না।এমন কুৎসিত চেহারা কোন নারীর হতে পারে বিশ্বাস হয় না যেন । কালো শরীরের যতুটুকু নিরাবরণ-_-হাত, গল চিবুক-_ সর্বত্র কদর্য উদ্ধির aM | Aq মুখখান। উদ্কির কলঙ্কে যেন আরও বীভৎস, আরও ভয়াবহ হয়ে উঠেছে।কিন্তু বিস্ময় মানতে হয় তার শক্তি দেখে । যে ট্রাঙ্ক আর cafes মাথায় তুলতে হিমসিম খেয়ে গিয়েছিল স্টেশনের কুলি, কৌতুকী অবলীলায় সে ছুটোকে বয়ে নিয়ে এসেছে সিড়ি ভেঙে ।ঘরে ছু'খান| ছোট ছোট ভক্তপোশ, একখানা ছোট টেবিল, একট) নড়বড়ে চেয়ার |বাক্স আর বেডিং তক্তপোশের ওপর নামিয়ে রাখলে৷ কৌতুকী। ক্রমে ক্রমে বাকী মালপত্তরও নিয়ে এলো |তারপর যা বললে তার অর্থ হলে), কুঁজোয় জল এনে দিচ্ছি, যখন যা দরকার আমাকে ডাকবেন।wal ফিসফিস করে মাকে শুনিয়ে বললে, তাই যাও বাব বেশিক্ষণ থাকলে গা বমি বমি করবে।Se



Leave a Comment