আমার জীবন-কথা কিছু বলে যাই | Amar Jiban-katha Kichu Bole Jai

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
AMAT মায়ের আশ্রমে দেখেছি একখানা বড় বোর্ডে দিদির সম্বন্ধে সুন্দর wea সব কথা লিখে রাখা হয়েছে। দিদির যে-রকম চরিত্রের আদর্শ তাতে Sta প্রসঙ্গ ওইভাবে লিখে রাখা este সমীচীন । কাশীতে sais এইরকম CAA আছে । সম্ভবতঃ দিদির প্রসঙ্গে আরও অনেক কিছু লেখা হইয়েছে। এইরকম স্মারক সব লিপি থাকাই প্রয়োজনীয় |গুরুপ্রিয়| দেবীর প্রসঙ্গে আরও অনেক কথা মনে পড়ে আমার । আমি যে সময়ের কথা বলছি, সেই সময়ে গুরুপ্রিয়৷ দেবী অর্থাৎ আমাদের দিদি একান্তভাবে HD কারে! দিকে না তাকিয়ে মায়ের কাজ ক'রে যেতেন। তার নিষ্ঠার কথাই আমি বারে বারে ভাবছি ।আরও কথা আছে । কত কথাই না রয়েছে। কুম্ভের বাড়ীতে দিদি আমাকে একটি ভার দিলেন। আমার মনের মতই সে ভার। আমরা তখন রয়েছি পীতকুঠি নামক বাড়ীতে । হরিদ্বারের কথা বলছি।গঙ্গার ধার । বাড়ীর একেবারে লাগোয়া গঙ্গা । যেখানে গঙ্গা বাড়ীর একেবারে পাশ দিয়ে গিয়েছে সেইখানে গঙ্গার কিনারটা grant বাধানেো । হঠাৎ যেন মনে হয় বাড়ীর ভিতর দিয়েই ass আমাদের গঙ্গাদেবী প্রবাহিতা। সেই গঙ্গার Claas চমৎকার বীধানো। বাড়ীর ভিতরে ব'সেই যেন মা গঙ্গার স্পর্শ পাচ্ছি ।সেই বাড়ীতেই কিছুকাল ছিলেন আমাদের আনন্দময়ী ম! । মা তখন খুব অসুস্থ, আমি তখন নতুন এসেছি। ভোলানাথ অর্থাৎ মায়ের স্বামী তখন মায়ের কাছে।মায়ের কাছে দেখতাম একটা হিসাব ছিল ৷ বেহিসাবী হিসাব। কত কে আসছে যাচ্ছে অথবা! মায়ের কাছেই থাকছে তার কোন হদিস আমি পেতাম না।পরবর্তাকালেও তাই Batak কালের কথা বলতে পারি না। মায়ের দেহাবসানের পরে হয়তো৷ অনেক কিছু হয়েছে বা ইয়ে থাকে। সে সকল বিষয় নিয়ে আমি বেশি ভাবিও না, আমার সে-সব ভাববার কথাও নয়।১৬



Leave a Comment