বনে-পাহাড়ে | Bane-pahare

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
বনে-পাহাড়ে ৬ছিলাম। তখন সৌন্দর্য দেখে ভুলে যাই যে অত জায়গায় বাড়ী করবার মত পয়সা নেই আমার হাতে। সেবার দার্জ্জিলিও গিয়ে ভাবলাম “ঘুমে' একটা বাড়ী না করলে আর জীবনে ঘুম নেই ! কিন্তু যখন জিজ্ঞেস করে জানা গেল অন্ততঃ ছয় হাজার টাকার কমে ঘুম সহরে বাড়ী হবার যো নেই--তখনই--শত হস্তেন বাজিনাম্‌।ঝাড়গ্রামের আত্মীয়টির সঙ্গে দেখা হয়েছিল কলকাতায়। ste আউটের কলকাতায় বসে ক্ষণকালের জন্যে চোখের সামনে ভেসে উঠলো খানাকুই গ্রামের প্রান্তে সেই জ্য্যোৎস্নাস্নাত শালবন ও উদাস প্রান্তর, বনে, ঝোপে অজস্র ফোটা ল্যাম্টান। ফুল, নানা রং-বেরংএর | এই ফুলটা ওখানকার জঙ্গলে যত দেখেছি এত বাংলাদেশের এ অঞ্চলে কোথাও দেখিনি। তবে আজকাল কিছু কিছু আমদানি হয়েছে, বিশেষতঃ রেললাইনের ঢালুতে । রেললাইনের ঢালুতে অনেক বিদেশী ফুল দেখতে পাওয়া যায়। হয়তো রেলগাড়ীর সাহায্যে এ সব বীজ দেশবিদেশে কিভাবে ছড়িয়ে পড়ে--এ ছাড়! আর কি কারণ থাকতে পারে আমি জানিনে।জানুয়ারী মাস। আমি ঘাটশিলা আছি সে সময়। পাশের ষ্টেশন হোল গালুডি। কয়েকটি বন্ধু সেখানে ইংরিজি নববরেঁর উৎসব করবেন, আমাকে তারা নিমন্ত্রণ করেছেন।হেঁটেই রওনা হই। বেশি নয় ছ মাইল awl) কিন্তু পথের দৃশ্য আমার কাছে বেশ ভালই লাগে । উঁচু রেলপথের বাঁধ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছি, ডাইনে মাইল দুই আড়াই দূরে এবং বায়ে মাইল চারেক দূরে রেলপথের সঙ্গে সমান্তরাল শৈলমালা চলেছে বরাবর। ডাইনে সিদ্ধেশ্বর Ula শৈলমালা, বীর্দিকে কালাঝোড়।AM পড়ে এসেছে। একস্থানে রেলওয়ে কাটিং, অর্থাৎ সেখানে উঁচু ডাঙার কঠিন পাথরের মধ্যে দিয়ে রেললাইন কেটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বড় বড় চুণাপাথর ও বালিপাথরের টাই পড়ে আছে, খুব উঁচু পাথরের স্তুপ দেখাচ্ছে BAS পাহাড়ের VT |একটু ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম। জযয়গাটাতে একটু বসে নিলাম।



Leave a Comment