শিক্ষাতত্ত্ব [সংস্করণ-২] | Shikshatattwa [Ed. 2]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
শিক্ষার লক্ষ্য ¢করা যাক। দেখিতে পাওয়া যায় যে, মানুষ জীবনের আদর্শ বহুলাংশে অপরের প্রেরণা SIR গঠন sau থাকে, তাহা সত্য। কিন্ত এ কথা৷ বলিলেও কিছুমাত্র ভুল হয় না যে, প্রত্যেক ব্যক্তির আদর্শ তাহারই নিজস্ব ও অদ্বিতীয় এই অর্থে প্রত্যেক Parts, যেমন কবিতার, একটি নিজস্ব আদর্শ স্বাছে। যে কবি দেখেন যে তাহার we প্রতিভা ব্যর্থ হইয়াছে, তিনি কখনও অপরের একটি কবিতা দেখাইয়৷ বলেন না যে, সেইটিই wit কর| তাহার অভিপ্রায় ছিল। তাহার আদর্শটি সুনির্দিষ্ট, আর উহ) যদি বাস্তবরূপ লইতে পারে, তবে একমাত্র তাহার নিজের রচনাতেই পারিবে, অন্যের কবিতায় aa | তাহার আদর্শে যে উৎকর্ষেঁর মানটি স্চিত হয়, উহাতে ডাহার নিজ্জের প্রয়াসটি পৌঁছিতে পারে নাই, এই কথাই এক্ষেত্রে বুঝায়; অন্য লোক সেই লক্ষ্যস্থলে পৌছিয়াছে বা পৌঁছিতে পারিত, এমন কোনও কথা আসে না। সুতরাং শিক্ষার যে tory বিশ্বজনীন, তাহা জীবনের কোনও বিশেষ একটি আদর্শের সমর্থক ₹ইতে পারে Al কারণ মাছ যত, আদর্শের সংখ্যাও তত সুতরাং প্রত্যেকের ব্যক্তিতা ( individuality) অর্থাৎ নিজস্ব ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য যাহাতে সম্পূর্ণ পরিণতি লাভ করিতে পারে, এমন স্থযোগ সকলকে দেওয়াই হইবে শিক্ষার কার্্য। এই তাবেই প্রত্যেক ব্যক্তি বিচিত্র মানবজীবনের সম্মিলিত ধারায় নিজ নিজ প্রকৃতিগত বৈশিষ্ট্য ও মৌলিকতা অহুযায়ী নিজস্ব দানটি নিবেদন করিতে পারিবে। অবশ্য এ দানটি ঠিক Pet হইবে, তাহা ব্যক্তিই স্বয়ং নিজ জীবনে স্থির করিবে |মাছযের জ্রমবিকাশধার| এই নীতি অঙ্থ্যায়ী চলে কিনা, স্র্থাৎ ইহা প্রাক্কতিক নিয়ম দ্বারা males, না আকাশকুসুম কল্পনা মাত্র, সে আলোচনা HATS] কয়েকটি অধ্যায়ে Fal যাইবে। এখন ইহার কয়েকটি গুরুতর তাৎপর্য্যের উল্লেখ করা প্রয়োজন । আর ইহার সম্পর্কে যে সমস্ত ভ্রাস্তির উৎপত্তি হইতে পারে, সেগুলিকেও a করিতে হইবে |শিক্ষার উদ্দেশ্য verge cl কথা উপরে বলা গিয়াছে, তাহাতে AA হইতে পারে যে তাহাতে জীবনের উৎকৃষ্ট ও frse আদর্শের প্রতেদের উপর কোন গুরুত্ব আরোপ Sal হয় নাই। কোন শ্রেণীর ব্যক্তিতা বা চরিত্রকে উৎসাহ দিতে হইবে, আবরার কোন্টিকেই a. দমন করিতে হইবে, তাহার কোনও



Leave a Comment