মানুষ পাথর [সংস্করণ-১] | Manush Pathar [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
তারপর অরুণাচলেরই পাসিঘাটে এর সঙ্গে মিলিত হল আর একটি নদী । লোহিত fox আর লোহিত মিলিত হয়ে তৈরি করল ব্রহ্মপুত্র | ১৯৫১ সাল থেকে ডিক্রগড়ের কাছাকাছি হঠাৎই দেখা গেল ব্রম্মপুত্র কেমন যেন চঞ্চল হয়ে উঠেছে। ডিক্রগড় শহর এবং তার আশেপাশে শুরু হয়েছে প্রচণ্ড অবক্ষয়। ব্রম্মপুত্রের দক্ষিণ পাড় বরাবর | ১৯৫*-এ এই অঞ্চলে যে প্রচণ্ড ভূমিকম্প হয় সেই ভূমিকম্পই এর জন্যে দায়ী। ব্রম্মপুত্রের তারপর থেকেই যেন এক নতুন চেহারা | তার আগ্রাসী থাবা উত্তর পূর্বাঞ্চলের অন্যতম প্রাণকেন্দ্র foes শহরের দিকে বিস্তৃত হতে শুরু করে। এল সেপটেমবর ১৯৫৪ । ১৯৫* এর সেই ব্যাপক বিধ্বংসী ভূমিকম্পের পর এবার ধ্বংসের উন্মত্ততায় মেতে উঠল ব্রম্মপুত্র। এর কয়েকদিন আগে থেকেই শুরু হয়েছিল প্রচণ্ড বর্ষ । ছোট বড় শত শত শাখা-প্রশাখা নদী ব্রহ্মপুত্রকে তুলল ফুলিয়ে ফাপিয়ে ৷ IA চলল পাড় ভাঙ্গার লীলা | ভারতের প্রধানমন্ত্রী তখন জহরলাল নেহরু 1 একদিন নিজের চোখে পরিস্থিতিটা দেখার জন্যে তিনি হেলিকপটার চড়ে ডিক্রগড়ের আকাশে পরিক্রমা শুরু করলেন। আর তখনই । আকাশ থেকে তার চোখের সামনেই ঘটল সেই ঘটনা | শহরের পোস্ট এবং টেলিগ্রাফ অফিসকে নিয়ে শহরের এক Ht সমাহিত হুল নদী গর্ভে | পুরনো সেই শহর এখন ব্রম্মপুত্রের কবলিত। এরপর তৎপর ইয়ে উঠলেন ভারত সরকার। যে করে হোক SHAS রুখতেই BWA! এলেন বড় বড় ইনজিনিয়ার। এলেন হাইড্রোলজিস্ট এবং ভূতাত্বিক। ১৯৫৫-৫৬ সালে ডিক্রগড় শহরকে4



Leave a Comment