ভিয়েতনামে কিছুদিন [সংস্করণ-১] | Vietname Kichudin [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ফলে শহরের সবাই দৃস্তবরমত জানে কখন লড়াইয়ের কী গতি প্রকৃতি। এমন কি কখন কী বিপদের আশঙ্কা আছে তাও তারা জানে |aq পেরিয়ে উত্তর-পশ্চিম কোণ থেকে বেরিয়েছে 'রেশম্‌ সড়ক” ৷ পুরনে আমলে ছিল Her করার নামজাদা রাস্তা। এরই একাংশে শহরের বড় বাজার । সাবেকী অপ্রশস্ত রাস্তা । অনেকটা আমাদের চিতপুরের মত। গায়ে গায়ে ঠেমাঠেসি দোকান । দেশী বিদেশী রকমারি বাদ্যযন্ত্র। নকল চুল । কাঠের bran! চিরুনি আয়না। প্ল্যান্টিকের টুকিটাকি খেলনা। শল্তার জুতো । জামাকাপড়। ছবি। বিয়ার পানশালা। কুটির দোকান ৷ রাস্তার জায়গায় জায়গায় দড়ি দিয়ে ঘেরা সাইকেল রাখার কুপন ব্যবস্থা । এখানে সব সাইকেলেই লাইসেন্সের নম্বর। রাস্তায় fra ire করছে লোক। একজন ফুটপাথে বসে দামী পাথর বিক্রি করছিল । পুলিশ আসতে দেখেই চম্পট দিল। লোকে পুলিশকে স্বণ] কিংবা ভয় করে বলে মনে হল না। আসলে পুলিশটা যাচ্ছিল অন্য কোনো কাজে। মেয়েটিকে অন্য দিকে চলে যেতে দেখে ব্যাপারট] বুঝে সে একটু হাসল |রাস্তায় যার] এইভাবে দামী পাথর বা পুরনো দামী জিনিস বেচে, তারা পুরনো দিনের অভিজাত পরিবারের মানুষ । সমাজতন্ত্র হয়ে তাদের অবস্থা পড়ে যাওয়ায় তার এইভাবে পারিবারিক লুকানো জিনিমপত্র বিদ্বেশী দ্বেখলে কম দামে বেচার্‌ চেষ্টা করে |আমাকে দেখে নয়, মেরীকে দেখে রাস্তায় ভিড় জমে গেল । তার কারণ, মেরী ইংরেজ । আমাকে we পোশাক ব্যালে দ্বিলে রং ময়লা ভিয়েতনামী বলে অনায়াসে চালানো যায়। কেন না ভিয়েতনামীদ্বের আরুতি-প্রক্কতির সঙ্গে তারতীয়দ্বের অনেকখানি মিল । কেউ কেউ আছে Baw বাঙালীদের মত দেখতে।দিল্লীতে তো-হোয়াইয়ের সঙ্গে যখন আমার দেখা হয়, তো-হোয়াই দুঃখ করে বলেছিলেন, “যতদ্বিনই ares, যুদ্ধে আমরা frees) আমরা তখন ভাঙা দেশকে নতুন করে গড়ে Gat! কিন্তু মাককিনরা আমাদের যেসব পুরনো মঠ মন্দির আর স্থাপত্য ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছে, সেসব হবে আমাদের চিরদিনের লোকসান । সে ক্ষতি কোনোদ্বিনই আর পূরণ হবে না। আর জানো, তার অনেকগুলোতেই ছিল ভারতীয় সংস্কৃতির ছাপ ?উত্তর ভিয়েতনামের চেয়েও এই ছাপ বেশি করে পড়েছিল দক্ষিণ আর১৩



Leave a Comment