সুধী প্রধান স্মারক গ্রন্থ | Sudhi Pradhan Smarak Grantha

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
সুধা প্রধান : জীবন কথা / ২৫তখন ভালো ছিল TN | এজন্যে কোনও অর্থ সাহায্যও পার্টি করতে পারত না। আদর্শই ছিল চালিকা শক্তি | সুধী প্রধান হাসিমুখেই দুঃখ-কষ্ট সহ্য করতেন। তিনি জানতেন, কমিউনিস্টের জীবন ত্যাগের আর কষ্টের | সংগ্রামের আর সহিষ্ণুতার। আর প্রতীক্ষার | দিন বদলের, সমাজ বদলের |পার্টি অফিস তখন ছিল ২৪৯ নং বৌবাজার স্ট্টীটে (একালের বিপিনবিহারী গাঙ্গুলি Bib) | শনিবার রবিবার বাদে অন্য দিনগুলিতে সন্ধে বেলায় যেতেন পার্টি অফিসে। কাজের হিসেব দিতেন। বিভিন্ন ব্যাপারে পার্টির নির্দেশ নিতেন | তিনি ছিলেন পার্টির একনিষ্ঠ সৈনিক | তার আর একটি দায়িত্ব ছিল। তা হল, লেখক শিল্পী এবং পার্টির গোপন সংগঠনগুলির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলা | পার্টি কর্মীদের কাছে গোপন বার্তা পৌঁছে দেওয়ার কাজটিও তাকে করতে হত | অসুস্থ পার্টি কর্মীদের তদারক করা, তাদের চিকিৎসার ব্যাপারে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা এসবও তিনি করতেন। পাশাপাশি বামপন্থী পত্রিকাগুলিতে তিনি মার্কস, লেনিন, স্তালিন, রজনীপাম দত্ত প্রমুখের বিভিন্ন রচনার অনুবাদ করছিলেন এবং সাহিত্য ও সমাজবাদ সম্পর্কে প্রবন্ধ লিখছিলেন। ১৯৪ ১-এ প্রকাশিত হল Gid তিনটি বই : 'কৃষি ভারতের নগ্ন রূপ, 'ফ্যাসিবাদ ও নাজিবাদ' এবং “সর্বহারা বিপ্লব ও দলত্যাগী কাউটস্কি”। দ্বিতীয় বইটি রাহুল সাংকৃত্যায়নের এবং তৃতীয় বইটি লেনিনের রচনার অনুবাদ | প্রথম বইটি রজনীপাম দত্তের ‘India 17003%-র ভিত্তিতে লেখা।মাক্সীয় সংস্কৃতি আন্দোলনের সঙ্গেও তিনি গভীরভাবে যুক্ত হন। প্রগতি লেখক সঙঘ এবং ফ্যাসি-বিরোধী লেখক ও শিল্পী সঙেঘের কাজকর্মে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন ; ১৯৩৬ এর ১০ এপ্রিল লক্ষৌতে প্রথম AMS প্রগতি লেখক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বাংলা, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, মহারাষ্ট্র, গুজরাট, মাদ্রাজ থেকে লেখকেরা উপস্থিত হন। এঁদের দৃষ্টিভঙ্গি ছিল সমাজমুখী এবং প্রগতিশীল। যুগোচিত পরিবর্তনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সাহিতো প্রগতিশীল চিন্তা-ভাবনাকে রূপদানই ছিল এঁদের লক্ষ্য । এ উদ্দেশ্যে সর্বভারতীয় প্রগতি লেখক সঙঘ গঠনে এঁরা উদ্যোগী হন। ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রান্তের লেখকদের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন ও ভাববিনিময়ের একটি যোগসূত্র হয়ে ওঠে এই সঙঘ। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে — কলকাতায়, বোস্বাইয়ে, পুনায়, আমেদাবাদে, বেনারসে, পাটনায়, আলিগড়ে এর শাখা স্থাপিত ST | সুধী প্রধান যখন এ সঙেঘর কলকাতা শাখার সঙ্গে যুক্ত হলেন, তখন এ ACY রীতিমতো প্রতিষ্ঠিত সর্বভারতীয় সাহিত্যিক মহলে একটা সাড়া পড়ে গেছে। কলকাতা শাখাকে কেন্দ্র করে অবিভক্ত বাংলার বিভিন্ন অঞ্চলে — ঢাকায়, মৈমনসিংহে,



Leave a Comment