আধুনিক কবিতার ভূমিকা | Adhunik Kobitar Bhumika

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
পরও যে তিনি সেই বাক্বন্দী রচনাটির কারুকাধ্য সম্পর্কে স্ব -অবহিত হতে পারেন তা-ও নয়। বাক্‌ সামাজিক ; ats চিত্র- প্রদায়ক ; চিত্র বিচিত্ররসদাতা। একটি বাক্বন্দী wit cq কটি রসচিত্র দিতে সমর্থ, তা Ba sfaa চাইতে অনেকস্থলে অবলোকন- কারী সমালোচকরা ভালো বলতে পারেন। যে-রচনা| কবির মনঃপুত হচ্ছেনা, অনেকক্ষেত্রে সে-কবিতা কবিকে যশস্বী করেও তোলে, দেখা যায়। ধ্বনির স্বকীয় গুণের দরুণই তা হয়ে থাকে | তাই আমাদের মনে হয়, কবিতা ভাষান্তরিতা হতে পারেনা | ভাষাস্তরিত|! হয়ে. যে-কবিতা কাব্যগুণ বজায় রাখে সে-কবিতায় কতকটা স্থায়ী ভাবরস আছে বলা যায়। কিন্তু ভাষা-শিল্পে ধ্বনি অবান্তর এবং স্থায়ী ভাব ও ans way, তা তো নয়। গুণী কাব্যরসিকের চোখ আর কান সমান সজাগ থাকে । কাব্য ছুটি ইন্দ্রিয়ের সঙ্গী হয়ে তবে অন্তরেন্দ্রিয়ে প্রবেশ করে। চিত্র-গীতি চেতনায় যে রঙ ফলায় তা-ই কাব্যের আম্বাদিত রঙ |তাহলে বল্তে হয় যে চোখ-কান থাকলেই কাব্যের চিক্কণ-রূপ- দর্শন হয়না--চাই চেতনার অচ্ছোদ-সরসী ৷ He কবি সম্ভবত এই মানস-সরসীর মালিক । সৎ সমালোচক মানস-যাত্রীর TERE স্বীকার করে তবে সেই তীর্থে উপনীত হতে পারেন । তখন সলিল জ্ঞানই তাকে বলে দেবে এ-সরসী সম্বদয়--ব্যুহ-গুহা-কুহক প্রভৃতি কিছুই নয়। কিন্তু মুস্কিল এই, চেতনার মুখোমুখি দাড়াতেই অনেকে শেখেননি-_ফলে চোখ-কান-নির্ভর হয়ে স্বপ্নভঙ্গের হতাশায় বা কুহকের কুয়াশায় বসবাস করে ata যেয়ি কবি, তেমি Sta পাঠক ও সমালোচক এই Hat ভুগতে পারেন। সমালোচক যদি কবিতায় ভোজবাজি দেখতে ae করেন, তাহলে কবি ‘al হতোইস্মি' না বলে আর কিছুই বলতে পারেন না।চেতনায় ফলিত চিত্র স্বপ্নে বা মত্তাবস্থায় ভোজবাজি দেখায় কিন্তু শিল্পীর এলাকায় যখন তা বিবেচিত হয় তখন পরা/বাস্তবতায়



Leave a Comment