কালের পুতুল | Kaler Putul

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
® কালের পুতুলশিক্ষা ও চাতুর্য ছাড়া কোনো প্রকার সাহিত্যেরই লেখক হওয়া যায় না_ অস্তত অসংখ্য পাঠকের কৌতূহল আকর্ষণ করা ও বজায় রাখার কৌশলটা শিখতে হয়, কিন্তু ‘The Fountain’-4¢qSl চার্লস মর্গ্যান-এর ( যে-দৃষ্টান্ত প্রথম মনে এলো সেটাই দিলুম) সে-রকম কোনে দায় নেই; তিনি যত খুশি ক্লাস্তিকর ও অপাঠ্য হতে পারেন, কেননা তিনি 'ইনটেলেকচুয়েল''জনপ্রিয়' সাহিত্য সম্বন্ধে মম্‌ একটি মন্তব্য করেছেন, যা উদ্ধতিযোগ্য। আমরা যখন বলি যে অমুক বইটি এতই ভালো যে এ-যুগে এর আদর হবে না, হবে ভবিষ্যতে, এবং এ-মতের সমর্থনে দু-একটা বিখ্যাত নজির দেখাই, তখন আমরা ভুলে থাকি যে এমন কত হাজার বই লেখা হয়েছে, বর্তমান যাদের গ্রহণ করেনি, এবং ভবিষ্যৎ যাদের কবর দিয়েছে। বর্তমানে উপেক্ষিত হ'লেই ভবিষ্যতে সম্মানিত হবে, এমন কোনে নিশ্চয়তা নেই as গণতান্ত্রিক যুগে ছাপাথানার গর্ত থেকে যত হাজার-হাজার বই প্রতি বছর বেরোচ্ছে, তার বেশির ভাগই লেখকের পগ্ডশ্রম ও কাগজ-কালির অপব্যয় WIG! CHASM পাঠক চান; এবং 'বাজে” লেখকমাত্রেরই পাঠক জোটে না। ইংরেজি ভাষায় রাশি-রাশি নভেল জলের বুদ্ধ দের মতো ফুটে উঠেই মিলিয়ে যাচ্ছে। যে-কোনো যুগে পাঠকসাধারণের কতগুলে নির্দিষ্ট (কি অনির্দিষ্ট) দাবি থাকে; সে-দাবি মেটাতে অল্প লেখকই পারেন । যারা পারেন, তাদের মধ্যে আবার ( এটাই qt) অনেকেই সংলেথক । আমরা সাধারণত বলি যে ICU লেখক ভবিষ্যতের জন্য লেখেন। কথাটা এ-হিশেবে সত্য যে বড়ো লেখকের দৃষ্টি এতদূরে প্রসারিত হয় যে তার স্বকালের বহুযুগ পরেও তার লেখা মূল্যহীন হ'য়ে পড়ে না; অনেক সময় তার মধ্যে আমরা ভবিষ্যতের অগ্রদূতকে দেখতে পাই, অবশ্য তার মৃত্যুর পর কিছুকাল কাটলে; চিরকালের পটভুমিকায় যখন আমরা তাঁকে দেখি তখনই তার অগ্রগামিত৷ উপলব্ধি করা৷ সম্ভব, তার আগে নয়। তবে এ-কথাও সত্য যে মহত্তম লেখকদেরও কোনো-কোনে৷ অংশ পরবর্তী যুগে ঝ'রে পড়ে; RISA, ধর্ম ও রাজনীতি সম্বন্ধে স্ইইফট-এর নিবদ্ধাবলি, যার মধ্যে তার মহত্বের নিদর্শন ইতস্তত বিক্ষিপ্ত, তার প্রচার আজকের দিনে বিশেষজ্ঞমহলেই আবদ্ধ। যে-সব বেনামি রচনা সে-সময়ে সমস্ত আয়র্লও ও ইংলগ্ডকে মুখর ক'রে তুলেছিলো, যার কোনো-একটির লেখককে ধরিয়ে দেবার জন্য পুরস্কার পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়েছিলো, আজকের সাধারণ পাঠকের কাছে তা ঘোরতর নীরস ঠেকবে--কেননা সে-সব সমস্যা, অস্তত আপাতদূষ্টিতে, আজকের ALT] AY! বড়ো লেধকর| সকলেই একদিক থেকে যেমন চিরন্তন, তেমনি অন্য দিক থেকে সমকালীন, স্বীয় সময়ের আদর্শ অনসারে আধুনিক, এমনকি--০৮1০৪1]। সমকালীনতা লেখকদের একটা মস্ত গুণ। বর্তমান_ যুগকে, সমসাময়িক পাঠককে লক্ষ্য করেই মহত্তম থেকে ক্ষুদ্রতম লেখকের



Leave a Comment