চল্লিশের দশকের ঢাকা | Challisher Dashaker Dhaka

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
বাবাকে না জানালে তাঁর পক্ষে সব জানা সম্ভব ছিলো না।আমাব শৈশবে ঢাকা শহরে আমরা যে-পাড়ায় থাকতাম সে পাড়ার অধিকাংশই ছিল একতলা বাড়ি এবং CHACHA করে তৈরি। অনেক সময় পাশাপাশি নির্মিত দু'তিনটি বাড়ির মালিক ছিলেন একই ব্যক্তি | ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে আমি এবং আমাব সঙ্গীরা অনায়াসে এক বাড়িব ছাদ থেকে অন্য বাড়ির ছাদে লাফিয়ে যেতাম এবং দুপুরে ছাদের ওপর দুরন্ত ছেলেদেব দাপাদাপিতে বাড়ির লোকদের দিবানিদ্রাব বিস্তর ব্যাঘাত ঘটতো। এ নিযে আমার বাড়ির অভিভাবকের কাছে নালিশ আসতো, যেমন নালিশ যেতো অন্য বাড়িতেও | আমার মা তীর সুন্দব স্বভাব ও আচরণের জন্যে পাড়ার মহিলামহলে বেশ জনপ্রিয় ও পরিচিত! ছিলেন। আমাব বাবা-মাব সংসার খুব ছোট ছিল না, আমবা চার ভাই ও ছয় বোন, ভাইবোনদের মধ্যে আমার দিদির (যিনি সকলেব বড়ো) বিযে আমাদেব শৈশবেই হযেছিলো। অন্য সবাই লেখাপড়ায ভালো ছিলাম বলে-_-অর্থাৎ ভালোভাবে পাশ করে যেতাম SHS পবিবারের সুনাম আমার শৈশব-কৈশোবেব চরম দুবস্তপনা সত্ত্বেও কখনো তেমন fafywo হয় নি।ব্যস যখন একটু বাড়লো তখন ঘুড়ি ওড়াবার নেশা যেন একটু কমে এলো; কিন্তু অপব দিকে বাড়লো সিনেমাব আকর্ষণ। যতোদূর মনে পড়ে ১৯২৭-এ আমি আবমানিটোলা গভর্নমেন্ট স্কুলে ক্লাস থ্রি-তে ভর্তি হযেছিলাম, এব আগে আরো কম বযসে কিছুকাল পড়েছিলাম ব্যাপটিস্ট মিশন স্কুলে । এই BG বেশ কযেক একর জায়গা নিযে সদরঘাট এলাকায ঢাকাব হেড পোস্টাপিসের কাছেই ছিলো। প্রতিদিন দেখা যেতো বিশালকায় অশ্বচালিত গাড়িতে শহরের ডাক নিযে ডাক বিভাগের কর্মীবা আসা-যাওযা কবতো। পোস্টাপিসেব কাছেই ছিলো তখনকার দিনের স্বনামধন্য fap গুহঠাকুরতার বাড়ি। এই বাড়িরই ছেলে G8 AS গুহঠাকুরতা, যার সঙ্গে আমার আলাপের সুযোগ হযেছিলো বহুকাল পরে কলকাতায তাঁব এলগিন রোডের বাড়িতে, তখন তিনি ছিলেন ইণ্তিযান টি এক্সপানসন বোর্ডেব প্রচার বিভাগেব কর্মকর্তা । এই বাড়িবই মেয়ে HHS গুহঠাকুরতা উত্তরকালে অভিনেত্রী ও পরিচালিকারূপে খ্যাতি অর্জন করেন। ব্যাপটিস্ট মিশন স্কুলেব কাছেই ছিল ব্যাপটিস্ট মিশন হোস্টেল যেখানে বহিরাগত কলেজেব ছাত্ররা থাকতো। এই আবাসিক ছাত্রাবাসটি পবিচালনা কবতেন শ্বেতাঙ্গ মিশনারীরা এবং নিয়মিতভাবেই ঢাকার নানা সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানগুলোর আয়োজন থাকতো! পুরনো ঢাকাব এই দিকটাই আমার কাছে খুব আকর্ষণীয ছিলো। সদরঘাট বাংলাবাজার দিগবাজার এবং বাকল্যাণ্ড বাঁধ নিয়ে এই এলাকা | এদিকে ওদিকে উল্লেখযোগ্য স্থানগুলোতে হেঁটেই যাওয়া যেতো। সেন্ট CANT স্কুল, ঢাক! কলেজিয়েট স্কুল, ইডেন কলেজ ও স্কুল, পগোজ স্কুল, ঢাকা জগন্নাথ কলেজ পূর্ববঙ্গের ছেলেমেয়েদের শিক্ষা বিস্তারে যথেষ্ট অবদান জুগিযেছিল। সদরঘাট ও বাংলাবাজার এলাকায ছিল বইপত্র ও কাগজের অনেক দোকান! বিপ্লবী নলিনীকিশোব গুহ সম্পাদিত সাপ্তাহিক সোনার বাংলা পত্রিকাটি প্রকাশিত হতে। বাংলাবাজার অঞ্চল থেকেই এবং এই অঞ্চলেই প্রতিষ্ঠিত ছিলো স্বদেশসেবী অনিলচন্দ্র ঘোষের প্রকাশনা সংস্থা প্রেসিডেন্সি লাইব্রেরি । তাছাড়া সংলগ্ন ফরাশগঞ্জ এলাকা থেকে বেরুতো মাসিক শান্তি১৬



Leave a Comment