প্রাচ্যবাণী প্রবন্ধাবলী [খণ্ড-৫] | Prachyabani Prabandhabali [Vol. 5]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১২ Aaaবৎসরেই নিবিয়া যায়। অপরাজেয় শরৎচন্গ্রের দীপু-প্রতিভা বাংলার সাহিত্যাকাশে বহুদিন প্রজলিত থাকিতে পারে নাই। বর্তমান যুগের সাহিত্য-রণভূমির সব্যসাচী att একমাত্র রবান্দ্রনাথই স্থ্দীর্ঘ ৮১ বৎসর কাল জীবিত থাকিয়া আমাদের জননী-সম্বরূপিণী মাতৃ- ভাষার পাদ-পীঠে বিবিধ পুষ্পের অঞ্জলি দিয়াছিলেন। পূর্বেই বলিয়াছি নবীনচন্দ্র জীবনের বহু বৎসর AIS বাংলা সাহিতের সেবা sfaai গিয়াছেন। এই দীর্ঘকাল বাংলার কোন কবিই কবিতা-মাধুধ্যে তাহার সমকক্ষ ছিলেন না বলিলেই হয়। নবীনচন্দ্র মহাভক্ত কবি ছিলেন । যে ভক্তির আসনে জয়দেব চণ্ডীদাস প্রভৃতি অধিষ্ঠিত আছেন, নবীনচন্দ্রের আসনও তাহাদের মধ্যে। ভক্তির উচ্ছ্বাসেই তিনি তার অমর মহাকাব্যসমূহ লিখিয়াছিলেন। “রৈবতক” “কুরুক্ষেত্র” বাহির হইপে মনীষী স্যর গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বন্কিমচন্দ্র তাহার সহিত যে সমস্ত পত্রালাপ করেন, তাহা পড়িলেই বোঝা যায় যে, নবীনচন্দ্র কোন অপাখিব প্রেরণার এঁ সমস্ত কাব্য লিখিয়াছিলেন | | রৈবতক কাব্য“রৈবতকে” কবিবর adam খণ্ড ভারতে এক মহাভারত স্থাপনের স্বপ্ন দেখিয়াছেন। একদিকে ভুর্বাসাপ্রমুখথ খমিগণ নানাবিধ ক্রিয়াকলাপপূর্ণ ব্রাম্মণ্য-পর্ম ও বেদের প্রাধান্য স্থাপন কারতে BAM, অপরদিকে ছুধ্যোধন, শিশুপাল, জরামন্ধ, ভগদত্ত প্রভৃতি Bray অধাম্মিক পরপীড়ক ও প্রঙ্গাপীড়ক ক্ষত্রিয়গণ অশ্বমেধ রাজমেধ প্রভৃতি ষজ্ঞদ্বারা তাহাদের নিজ নিজ রাজ্য বিস্তারে ভারত-সাম্রাজ্যকে করতল- গত করিয়া সার্বভৌম সম্রাট হইতে সচেষ্ট--এই Toa বাধা-বিস্নের মধ্য দিয়া শীরুষ্ণ পাগুবদিগের সহায়তায় কিরূপে ভারতে ধর্শরাজ্য সংস্থাপন করিতে পারগ হইয়াছিলেন, নবীনচন্দ্র তাহার “রৈবতক১ কাব্যে তাহাই



Leave a Comment