ভারতের সাধক [খণ্ড-৯] | Bharater Sadhak [Vol. 9]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
নিত্যানন্দ অবধূত >বৈষ্ণবীয় নিষ্ঠা । নিত্যানন্দের দেবছুর্লভ কান্তি, আজামুলমস্বিত বাছ ও আয়তনেত্র দেখিয়৷ তিনি মোহিত হন এবং সমযত্বে নিজ গৃহে রাখিয়া দেন । নীরবে প্রচ্ছন্ন জীবনযাপনেই অতিথির অভিলাষ। তাই তাহার নির্দেশে আচার্য কাহাকেও এ সংবাদ দেন নাই।নিত্যানন্দের আগমন সংবাদ কিন্তু সর্বজ্ঞ গৌরাঙ্গের কাছে অজানা WS নাই। কয়েকদিন হয় প্রভু কেবলই ভক্ত পার্যদদের বলিতেছেন, “তোমরা সবাই দেখবে, fered নবদ্বীপ ধামে এক মহাপুরুষের আবির্ভাব arg 1”Sen fey হইয়া এ উহার মুখের দিকে তাকায়। কে এই মহাপুরুষ ? কি তাহার পরিচয় ? কিছুই বুঝা যাইতেছে না।কৌতুকী প্রভু এবার ব্যাপারটিকে আরও কিছুটা স্পষ্ট করিয়া তুলিলেন । কহিলেন, “তোমরা এক আনন্দের সংবাদ শোনো | কাল রাতে চমৎকার এক স্বপ্ন আমি দেখলাম । মোহন বেশধারী, অনিন্দ্যসুন্দর এক অবধৃত পুরুষ আমার সম্মুখে হঠাৎ এসে াডিয়েছেন। তার বদনমণ্ডল থেকে জ্যোতি বিকীর্ণ হচ্ছে। তিনি বললেন, আমি আর তিনি নাকি অভিমনৃদয় । সঙ্গে সঙ্গে একথাও জানালেন, আজই তিনি আমাদের দর্শন দান করবেন ।”মহাপুরুষের এ প্রমঙ্গটে আলোচনার সঙ্গে সঙ্গেই প্রভুর একি বিচিত্র রূপান্তর! ভাবাবিষ্ট হইয়া বারংবার তিনি asta ছাড়িতে থাকেন। কিছুক্ষণ পরনে আবার স্বাভাবিক অবস্থা প্রাপ্ত হইয়া কহেন, “oir, তোমরা শিগ্‌তীর নবদ্বীপ ধামের চারিদিকে সন্ধান ate সেই মহাপুরুষকে অবিলম্বে বার করতে হবে। তাকে দেখবার জন্য আমার মনপ্রাণ ব্যাকুল হয়ে পড়েছে 1”ভক্তেরা Teas weal বাহির হন। কিন্তু বহু খোঁজখবর করিয়াও তাহার সন্ধান পাওয়া! গেল না।গৌরাঙ্গ এবার নিজেই পার্যদবগণ-সহ নগরে বাহির হইলেন স্বপ্নে ye মহাপুরুষকে দর্শন না করিয়া তাহার স্বস্তি নাই। নয়নে camera ধারা, সারা দেহখানি পুলকাঞ্চিত- প্রভু যন্ত্রচালিতৰং



Leave a Comment