বাজী রাও | Bazi Rao

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ARSE | aস্বের চতুর্থাংশ ব্যয়িত হইত । মহাত্মা শিবাজীর চেষ্টায় Tsay শক্তি যখন দেণ মো প্রাণবন্ত লাভ করিল, তখন মহারাঃ-নরপতিগণ দুর্বল প্রতিবেশী রাজ্যের শাস্তি-রক্ষার 'ও শত্রুর আক্রমণ-নিবারণের ভার গ্রহণ করিতে লাগিলেন | কাজেই সেই আশ্রিত রাঙ্গ্যের রাজস্বের চতুর্থাংশ বা চৌথ তাহাদিগের প্রাপ্য হইল । ফলতঃ “চৌথ” অপরের রাষ্য- রক্ষার্থ সৈন্তপোষণের বেতন ভিন্ন আর কিছুই নহে | এইরূপ বেতন লাভ করিয়া স্বকীয় সৈন্য-পোষণের ব্যয়-ভাঁর লাঘব করিব[র কল্পনা প্রথমে শিবাজীই উদ্ভাবিত saa | তিনি বহু দিন হইতে বিজাপুর ও গোলকোও!র স্থলতানদিগের এবং মোগল বাদশাহের নিকট তাহাদিগের রাজ্য বা রাজা!ংশ রক্ষার ভার-গ্রহণ ও তাহার বেতনস্বরূপ “চৌথ” aga প্রার্থনা করিতেছিলেন। পরিশেষে ১৬৬৮ খৃষ্টাব্দে মেগলদিগের আক্রমণের ভয়ে বিপন্ন হইয়৷ দক্ষিণা- পথের স্বলতানেরা শিবজীকে চৌথ-স্বরূপ বার্ষিক আট লক্ষ টাকা দিতে স্বীকৃত ST ও তাহার মৈন্ঠমাহায্য লাভ করেন। সে সময়ে কেবল শিবাঁজীর সহায়তার ফলেই বিজাপুর ও গোলকোওা রাজ্য মোগল সম্রাটের AMAT Se আক্রমণ হইতে রক্ষা! পাইয়াছিল ৷ এইরূপে উভয় পক্ষের সম্মতিক্রমে সর্বপ্রথম দক্ষিণ ভারতে “চৌথ' প্রথার প্রবর্তন হয়।



Leave a Comment