অমরতীর্থ অমরনাথ | Amartirtha Amarnath

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ঘণ্টাখানেক সময় লেগে যাবে। কাজেই রাত দশটার আগে পহেলগীাও পৌঁছতে শার্ব বলে মনে হচ্ছে না।oy শহর ছাড়িয়ে এসেছি। এখনও তেমন চড়াই-উৎরাই আরম্ভ হয় নি। উধমপুর পর্যন্ত এই রকম চলবে, তারপরে সুরু হবে ASS পাহাড়ী পথ | উধমপুর রেশ বড় শহর | PY থেকে দূরত্ব ৪২ মাইল ৷ VHS! ২৩৪৮ ফুট | তার মানে ৪২ মাইলে আমাদের মাত্র ১৩৪৮ ফুট ওপরে উঠতে হবে। GAT উচ্চতা ১০** ফুট |এটি একালে সমতল ভারতের সঙ্গে কাশ্মীর উপত্যকায় আসার প্রধান পথ হলেও সেকালের জনপ্রিয় পথ AT জগদ্গুরু শঙ্করাচার্য কোন্পথে কাশ্মীর এসেছিলেন জান] নেই আমার, তবে মোগল সম্রাটরা এপথে কাশ্মীর আসতেন all স্বামী বিবেকানন্দও এপথে অমরনাথ আসেন নি।স্বামীজী অমরনাথ এসেছিলেন রাওয়ালপিণ্ডি-বারমূলা-শ্রীনগর পথে ৷ পাকিস্তান স্ষষ্টির পূর্ব পর্যন্ত সেটিই ছিল কাশ্মীরে আসার প্রধান পথ। দেপথে আর কাশ্মীরে আসার অধিকার নেই আমাদের |' কেন নেই, সে প্রসঙ্গে না গিয়ে স্বামীজজীর কথায় ফিরে আসা যাক। স্বামীভীঅমরনাথে এসেছিলেন ১৮৯৮ খ্রীষ্টাব্বের ars মাসে। সেটি Sra দ্বিতীয়বার কাশ্মীর দর্শন। সেবারে দ্বামীজীর সঙ্গে কয়েকজন গুরুভাই, পাশ্চাত্য অভ্যাগত এবং শিষ্য ছিলেন। তাঁদের মধ্যে ভগিনী নিবেদিতা অদস্যতমা।বাস ছুটে চলেছে। আমি অমৃতময়-অমরনাথের পথে Bhitce চলেছি। প্রায়-মাশি বছর আগে amet অমরনাথ দর্শন করেছিলেন। তিনি তার আগের বছরও শরৎকালে কাশ্মীর এসেছিলেন । সেবারে লোকমাতা নিবেদিত তীর সঙ্গে ছিলেন না। কিন্তু নিবেদিতার রচনা থেকেই আমরা সেবারের একটি RAI ঘটনা জানতে পারি |বাদে বসে বসে সেই কথাই ভাবছিলাম। ভাবছিলাম সেই পরমা সী বর্ষীয়লী কাশ্মীরী ভদ্রমহিলার কথা। খ্রীনগরের পথে এগিয়ে চলেছেন ভারত- পথিক বিবেকানন্দধ। পথ্্রমে ate ও তৃষ্ণার্ত স্বামীজী পথের পাশে একখানি বাড়ি দেখতে পেলেন | দেখলেন বাড়ির সামনে এক সী প্রৌঢ়া বসে রয়েছেন। array তার Stow গিয়ে একগ্লাস জল চাইলেন |ভদ্রমহিলা সঙ্গেহে স্বামীজীকে বসতে বললেন। যত্ন সহকারে তাঁকে জল এনে দিলেন। জল খেয়ে ও বিশ্রাম করে বিবেকানন্দের ক্লাস্তি দূর হল। পরিব্রাজক সন্ত্রাসী আবার উঠে term বিদায় বেলায় সেই মহীয়সী মহিলাকে Ferry করলেন--মা, আপনি কোন্‌ ধর্মাবলম্বী !OR



Leave a Comment