গ্রন্থাগারের রূপ ও বিকাশ | Granthagarer Roop O Bikash

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
৯ গ্রন্থাগারের wets বিকাশAncient Indian Education নামক পুস্তকে উক্ত অগ্নিকাণ্ডের যে বিবরণ আছে তাহা উদ্ধত করা গেল ঃAfter the Turuskha raiders had made incursions in Nalanda, the temples and the chaityas there were repaired by a sage, named Mudita Bhadra.Soon after this, Kukutasiddha, minister of the king of Magadha, erected a temple at Nalanda and while a religious sermon was being delivered there, two very indigent Tirthika mendicants appeared. Some naughty young novice monks in disdain threw washing water on them. This made them very angry. After propitiating the sun for twelve years, they performed a yajna, fire sacrifice, and threw living embers and ashes from the sacrificial pit intothe Buddhist temples, This produced a great conflagration which consumed Ratnodadhi.”নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের পর ওদস্তপুরী ও বিক্রমশীল| নামক পু'থিশালা gee বিশেষ খ্যাতিলাভ করে। প্রথমটি বিহারের এক শহরে ও দ্বিতীয়টি গঙ্গার উত্তর তীরে বিক্রমশীলা নামক স্থানে অবস্থিত ছিল । প্রথমোক্তটি বক্তিয়ার খিলজীর দ্বারা! wiles হয়। বিক্রমশীলা ও বাংলার জগদ্দল বিহারের পুঁথিশালা gate এ একই ভাবে বিনষ্ট হয়। মুসলমানদের আক্রমণে যখন সমস্ত পু থিপত্র নষ্ট হতে WH হল তখন বৌদ্ধ সন্ন্যাসীর| কিছু কিছু মুল্যবান পুঁথি সঙ্গে নিয়ে নেপাল, তিববত, চীন প্রভৃতি দেশে চলে গেলেন।. ভারতে গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠা ও প্রসার আন্দোলনে জৈনদিগের দানও সবিশেষ উল্লেখযোগ্য । গুজরাট ও কাথিয়াওয়াড়ে জৈন সন্ন্যাসীদের আবাস-সংলগ্ন বছ পুথিশালা ছিল । পত্তন,স্রাট, কাঘ্বে ও আমেদাবাদ প্রভৃতি স্থানের গ্রন্থাগারসমূহ “জৈন ভাণ্ডার” নামে খ্যাত। পত্তনের জৈন-ভাণ্ডার সম্পর্কে :অধ্যাপক পিটারসন লিখেছেন :



Leave a Comment