বাংলা উপন্যাসে মুসলমান লেখকদের অবদান (১৮৮৫-১৯৩০) | Bangla Upanyase Musalman Lekhakder Abadan (1885-1930)

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
AM উপন্যাসে মুসলমান লেখকদের অবদান ৫“রত্ববতী'কে উপন্যাস বলে মনে করি না-_তার কারণ পরে বিশ্লেষিত হয়েছে। আমি মনে করি মার মশাররফ হোসেনের জনপ্রিয় গ্রন্থ “বিষাদ-সিদ্কু'ই ( ১৮৮৫ ১৮৯১) বাঙালা মুসলমান- রচিত প্রথম উপন্যাস বলে গণ্য হতে পারে ৷ এই পথ ধরে পঞ্চাশ বছরের মধ্যে BAAN আরো পঁচাত্তর জন মুসলমান গুপন্যাসিক এবং তাদের রচিত প্রায় দেড়শ উপন্যাসের সাক্ষাৎ পাই ৷ কাজী নজরুল ইসলামের AA ( ১৯৩০ ) দিয়ে বাড়াল) মুসলমান রচিত উপন্যাসের ধারার প্রথম পর্বের সমাপ্তি বলে গণ্য করা৷ যায় ' এই হিসেবে বর্তমান গবেষণাণগ্রদন্থে আমি ১৮৮৫ থেকে ১৯৩০ খ্রীষ্টাব্দ পর্যন্ত বাঙালী মুসলমান-রচিত উপন্যাস আলোচনা করেছি। যেসব উপন্যাস save এর মধ্যে লিখিত বলে নিশ্চিত প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে, পরবর্তীকালে প্রকাশিত হলেও, তা আমার বিশ্লেষণের mas ey করেছি | ১৮৮৫ থেকে ১৯৩০ সাল--এই পঁয়তাল্লিশ বছর আমাদের সামগ্রিক জ্বীবনে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কাল ৷ ১৮৮৫তে ভারতের জাতীয় প্রেসের প্রতিষ্ঠা এবং ১৯৩*-এ আইন অমান্য আন্দোলনের মাধ্যমে ব্যাপক গণজ্বাগরণের প্রকাশ। পরবর্তা রাজনৈতিক ঘটনাবলীর THe এই সময়ের মধ্যে রোপিত হয়। সুতরাং কি উপন্যাসের বিচারে, কি me জীবনপ্রবাহের বিশিষ্ট প্রকাশে এই কালকে খণ্ডিত করে দেখার যুক্তি রয়েছে। এই কারণেই আমি এই কালসামা গ্রহণ করেছি | মুসলমানরচিত বাঙলা উপন্যাসের এই আলোচনায় আমি আশ! করি, সাহিত্যের ইতিহাস রচনার পক্ষে কিছু প্রয়োজনীয় উপাদান সংযোজন করতে HAY হয়েছি | সেই সঙ্গে একথা বলাও প্রয়োজন যে, বর্তমান আলোচনায় আমি এসব উপন্যাসের শিল্পরূপ বিশ্লেষণে তেমন প্রবৃত্ত হইনি । তার একটি কারণ এই যে, সমকালীন বাঙলাউপন্যাসের শিল্পরূপের মাপকাঠিতে এসব উপন্যাসে কোন অভিনবত্ত -_ ১ক



Leave a Comment