মৎস্যগন্ধা [সংস্করণ-১] | Mathsya Gandha [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
মৎল্যগন্ধা w“মানা ডাৰতেছে তোমাকে, বলাকাকা |’'ক্যানে রে'জানিনি' !”মামা] মালে অটবী ৷ জানিনি মানে জানে, কিন্তু বলবে না; কান BACHE. বানাতে হয়; আজকালঞক্কার দিনের ইচোড়ে te coon ছোড়াগুলোকে ।'মানজারবাবু, যাচ্ছি তবে ।''যাচ্ছ? কেন?'গায়ের নোকের) ডাকতে নেগেছে। একবারে এ পথেই ছপ পরে চলে ANT | মুপ্তরি টেইঙে দিচ্ছি, ঘুইমে থাকুন ।”ছপ.পর হল, ভেড়ীর মধ্যে পাহারা দেওয়ার জন্য চালা তুলে রাখা zy, সেগুলো ৷ মশারি, বিছানা সব ঠিকঠাক করে দিয়ে বলরাম বলল, 'লাইটটা দিন বাবু। যাচ্ছি এবারে।”ম্যানেজারবাবুর মন খারাপ হযে গেছে। বাইরে অঝোরে টিপ-টিপ করে বৃষ্টি পড়ছে । এর মধ্যে THA) নেহাৎং মন্দ লাগছিল না। €কালকাতার বাড়ীতে থাকলে এতক্ষণ বাড়ীর মেয়েরা কত আরামের ব্যবস্থা করে দিত। এখানে BY মানুষের FR হাতের ete, তাও দুর্লভ। একটা Aaa ফেললেন |'টর্চ? না, টর্চ পাবিনা আজকে। যে সাপ দেখেছি আজকে আলা ঘরের মধ্যে | বাপরে! অমনি যা বাবা, অন্ধকার চোখে সয়ে গেলে বেশ পথ দেখতে পাবি ।”সত্যি আজ বিকেলে আলা ঘরের চালায় একটা সাপ উঠেছিল ইছুর ধরতে । গণেশবাবু মারার জম্য few ধরেছিলেন | মেটে সাপ বলে ওরা মারতে রাজী হয়নি cach সাপ নাকি ate সাপ-_মারে না।বলরাম বালিশের ডল] cece টর্চটা টেনে নিয়ে বলল, ‘waa They মুপ্তরির তলায় শুয়ে বাবুর সাপের GU! আর রাত-ভোর বাঁধের উপর দিয়ে চলব, 'মৌগের সাপের ভয় নেই !”



Leave a Comment