ভারত ও ইন্দোচীন | Bharat O Indochin

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ভারত ও ইন্দোচীনউপদেশমত এই নূতন ধর্্ম-প্রচারে সাহায্য করতে বদ্ধ- পরিকর হলেন । গুণবর্্ষণ কার্যে সিদ্ধিলাভ Para | তার নাম চতুর্দ্যেকে ছড়িয়ে পড়ল | চীন দেশের CHD সেই খবর দেশে গিয়ে প্রচার করলেন | চীনের বৌদ্ধের। গুণবর্মণকে নিজেদের দেশে আনবার Gy সম্রাটের কাছে প্রার্থনা জানালেন। ফলে ata AEs চীনে এসে উপনীত হলেন (৪২৪ খুঃ অঃ ) এবং চীনদেশের নানাস্থানে পর্যটন ক'রে বৌদ্ধশাস্ত্রের আলোচনা ও অনেক বৌদ্বগ্রন্থের Nal অনুবাদ প্রকাশ করলেন বুদ্ধের বাণী পৃথিবীর নানাস্থানের শাক/পুত্রদের কাছে নূতন ক'রে শোনাবার আকাঙ্ক্ষক৷ তার সফল হয়েছিল। অবশেষে ৪৩১ খৃষ্টাব্দে নান্-কিং নগরের জেতবন-বিহারে তিনি শাক্যপুত্র পরিবেষ্টিত হয়ে ইহলোক ত্যাগ করেন।গুণবর্মুণের পর শতাধিক বৎসর ধরে যে-সব ভারত- সন্তানের তার পথাবলম্বন করেছিলেন, তার ভিতর সকলের চেয়ে বড় নাম হচ্ছে পরমার্থের। চীন-সম্রাট মগধের রাজার কাছে দূত পাঠালেন । চীনদূত কম্বোজের Mayers সঙ্গে নিয়ে মগধে এসে উপনীত হলেন ও তার প্রার্থনা জানালেন । প্রার্থনা--ভারতীয় একজন৫



Leave a Comment