ভারতের সাধক [খণ্ড-৭] | Bharater Sadhak [Vol. 7]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
মহাযোগী গোরখনাথআপন বিছাও, শুরু কর কঠোর SCM | সেখানেই লাভ করবে তোমার যোগসাধনার শ্রেষ্ঠ ফল 1”প্রথমে উভয়ে কাশী, বৃন্দাবন, কেদার বদরী প্রভৃতি সারিয়| চলিলেন দক্ষিণ ও পশ্চিম ভারতে। একের পর এক রামেখ্বর, Ts, পুষ্কর, দ্বারকা প্রভৃতি তীর্থ wipe শেষ হইল |এবার মংস্তোচ্্নাথ প্রিয় শিষকে কহিলেন, “eH, নাথযোগীরা দীক্ষান্তে যে সব তীর্থ দর্শন ক'রে তাদের মধ্যে হিংলাজের গুরুত্ব অত্যধিক । যোগ সাধনাকে যারা সার্থক ও পূর্ণাঙ্গ করে তুলতে চায়, তাদের পক্ষে এ স্থানে পরিত্রাজন ও দেবীর পুজা হোম অবশ্য অনুষ্ঠেয় | কিন্তু এ তীর্থের পথ বড় ছুর্গম 1”“তা হোক না প্রভু । কিন্তু এই হিংলাজের অবস্থান কোন্‌ দিকে ?” -_প্রশ্ন করেন গোরখনাথ ।“এ তীর্থ মকুরাণে, পশ্চিম সমুদ্রতীরে | সিন্ধুনদের মোহনা থেকে প্রায় আশী মাইল দূরে যেতে হয়। হিংলাজ পর্ববতশৃঙ্গের নীচেই হিংগল নদীর ধারে অবস্থিত শক্তিসাধনার মহাগীঠ এই হিংলাজ তীর্থ 1”“কি এর বিশেষ মাহাত্ম্য, গুরুদেব 7”“একান্ন সতীপীঠের অন্যতম এটি । দেবীর কপাল এখানে পতিত হয়েছিল-_কারো কারো মতে দেবীর কিরীট। আর এখানকার মন্দিরটি উৎসর্গ করা হয়েছে অগ্নিদেবীর নামে । দেবী হিংলাজ fami নামেও অভিহিত! হন। শ্েষ্ঠতম শক্তি বিভূতি যে সাধকেরা অর্জন করতে চায় _তা সে যোগীই cate কি তাঞ্ত্রিকই হোক, তাকে এখানে আসতেই হবে, বংস।১> হিংলাজ, নাগরঠাটা ও কোটেশ্বর একসময়ে পশ্চিম তারতের প্রাচীন ও গুরুত্পূর্ণ তীর্থ ছিল। হিমালয় ও কাশীর তীর্থসমূহের মতই ছিল ইহাদের খ্যাতি ও মর্যাদা 1 ভারত ও পশ্চিম এশিয়ার যোগাযোগ প্রাচীনকালে এখানকার কয়েকটি তীর্থের, বিশেষ করিয়া হিংলাজের, মাধ্যমে সাধিত হইত। উত্তরকালে এই তীর্থদেবী হিংলাজকে মুসলমানেরা বলা ee করে বিবি-নানী। মুসলমানেরা১৯



Leave a Comment