ভারতের সাধিকা [খণ্ড-২] | Bharater Sadhika [Vol. 2]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
৮ ভারতের লাধিকাবিষ্ণুপূজা, অধ্যাপনা, গঙ্গাস্নান ও forest অধ্যাপক বিশ্বস্তরের দিনরাতের বেশীর ভাগ অংশ কেটে যেতো ৷ জননী শচীদেবী ও পত্নী বিষ্ণুপ্রিয়ার সঙ্গেও অনেকটা সময় তিনি হাস্য পরিহাসে অতিবাহিত FACT Iঅবধুত নিত্যানন্দ তথন সবেমাত্র নবদ্বীপে এসে বিশ্বস্তরের সঙ্গে মিলিত হয়েছেন। স্থদশন সদানন্দময় প্রাণোচ্ছল এই যুবকটিকে শচীদেবী গ্রহণ করেছেন তার পুত্রস্নেহ দিয়ে |শচীদেবী সেদিন রাত্রে এক বিচিত্র স্বপ্ন দেখলেন । সকালে ঘুম থেকে জেগে ওঠার পর সবিস্তারে তা বর্ণনা করলেন পুত্র বিশ্বস্তরের কাছে। বললেন, “বাবা নিমাই, আমি স্বপ্নে দেখলাম, নিত্যানন্দ আর তুমি এ ছুজনেই যেন পাঁচ বছরের বালক হয়ে নিয়েছ আর ছ'ভাই সারা বাড়িময় দৌরাত্ম্য ক'রে বেড়াচ্ছে। এক সময়ে CONT আমার ঠাকুরঘরে গিয়ে ঢুকলে, আর অমনি সেখানে fag © হলেন:কৃষ্ণ বলরাম ছ'ভাই | তারা বললেন, তোমরা কে বলতো৷ ? আমাদের এ ঘরে ঢুকেছে! কার নির্দেশে ? এই ঠাকুর্ঘরে দুধ, দই, সন্দেশ, ক্ষীর যা কিছু নিবেদন করা হয়েছে, তা সবই আমাদের ৷ তোমরা এ সবের কিছুই পাবে না ।”“বল কি মা, তোমার ঠাকুরেরা cw বড় ঝগড়াটে, নিবেদিত aw কাউকে খেতে দেবেন না ?” রসিকতা ক'রে বলেন বিশ্বস্ভর।“তা বাবা, আমার মিত্যানন্দও বড় কম যায় না। সে পরিষ্কার ভাষায় বলে দিল, 'দ্যাখো, তোমাদের সেকাল কিন্তু আর নেই, সব বদলে গেছে। সেটা ছিল গোয়ালার যুগ, তাই তোমরা হৈ-হুল্লোড় ক'রে দই মাখন সব লুটেপুটে খেয়েছে | এটা ব্রাহ্মণদের যুগ, এবারে আমর! এসব খাবো, ভালোয় ভালোয় তোমরা সরে পড়ো, নইলে মেয়ে foe কারে দেবো ।'“এভাবে ater চললো কিছুকাল, তারপর তোমরা চার- জনেই ঠাকুরের ভোগ কাড়াকাড়ি ক'রে খেলে। তারপর নিত্যানন্দ ভাকলো-_মা, আমায় কিছু খেঁতে wre! অমনি আমার ঘুম ভেঙে



Leave a Comment