কিশোর অপু | Kishore Apu

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
পরে সন্ধ্যার দিকে ধলচিতের বড় খাল ও ইছামতীর মোহনায় একটা নির্জন চরে জোয়ারের অপেক্ষায় নৌকা লাগাইয়া রম্ধনের জোগাড় হইতে লাগিল | বড় চর, মাঝে মাঝে কাশঝোপ ছাড়া অস্ত গাছপালা নাই। একস্থানে মাঝির৷ ও অন্তস্থানে বীরু রায়ের স্ত্রী রুম্ধন চড়াইয়াছিলেন। সকলেরই মন প্রফুল্ল। ছুইদিন পরেই দেশে পৌঁছানো যাইবে। বিশেষতঃ পূজা নিকটে, সে আনন্দ তো আছেই |carter) উঠিয়াছিল । নোনা গাঙের জল চকচক করিতেছিল। ছ₹ঁছ হাওয়ায় চরের কাশফুলেয় রাশি আকাশ, জোৎস্ন।, মোহানার জল একাকার করিয়া উড়িতেছিল। হঠাৎ কিসের শব্দ শুনিয়। Rosey মাঝি রন্ধন ছাড়িয়া উঠিয়া দাঁড়াইয়া চারিদিকে চাহিয়। দেখিতে লাগিল । কাশঝোপের আড়ালে যেন একটা গুট.পাট, 44 একটা SUS ক একবার অস্ফুট চীৎকার করিয়। উঠিয়াই তখনি tif যাইবার শৰ্ধ। কৌতূহলী মাঝিরা ব্যাপার কি দেখিবার জন্য কাশঝোপের আড়ালটা পার হইতে ন৷ হইতে কি যেন একটা BVT sia চর হইতে জলে গিয়া ডুব দিল। চরের সেদিকটা জনহীন-_কিছু কাহারও চোখে পড়িল না।কি ব্যাপার ঘটিয়াছে, কি হইল, বুঝিবার পূর্বেই বাকি infe- মাঝি সেখানে আসিয়৷ পৌঁছিল। গোলমাল শুনিয়া বীরু রায় আসিলেন, তাহার চাকর আসিল। বীরু রায়ের একমাত্র পু নৌকাতে ছিল, সে কই? জানা গেল রম্ধনের বিলম্ব দেখিয়া সে খানিকক্ষণ আগে জ্যোংস্নায় চরের মধ্যে ব্ড়োইতে বাহির হইয়াছে। ঈাড়ি-মাঝিদের মুখ শুকাইয়া গেল, এদেশের নোনা গাঙ সমূহের অভিজ্ঞতায় তাহারা বুঝিতে পারিল কাশবনের আড়ালের বালির চরে বৃহৎ কুমীর GSA ওং পাতিয়া ছিল--ডাঙা হইতে বীরু রায়ের পুত্রকে লইয়া গিয়াছে |তাহার পর অবশ্য যাহ! হয় হইল । নৌকার লগি লইয়া এদিকে ওদিকে খোঁজাখুঁজি করা হইল, নৌকা ছাড়িয়া মাঝনদীত্ে৮



Leave a Comment