শ্রীমদ্ ভগবদগীতা [খণ্ড-১] | Shrimad Bhagabadgita [Vol.1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
tlg/ewera মধিমাত্রং যথা, সরুলমিদমহং চ AAA পরমপুমান্‌ পরমেশ্বরঃ A একঃ |ইতি মতিরচল! ভবত্যনস্তে হৃদয়গতে Se Sta বিহায় দূরাৎ ॥Tepe বলিতেছেন শরণাগতি তিনপ্রকার, সাধনের অভ্যাসের পরিপাকের তারতম্য বশতঃ এই ভূমিকাভেদ হয়। শরণাগতির প্রথম ভূমিতে বোধ হয় “আমি তাহার”। এখানে মৃদু শরণ গতি; ইহার উদাহরণ দিতেছেন-_হে নাথ, ভেদ চলিয়া গেলেও চিরকাল “আমি তোমার, “তুমি যে আমার'--ইহা কখনও নহে । সকলেই বলে সমুদ্রের তরঙ্গ; “তরঙ্গের A’ কেহই বলে না।দ্বিতীয় ভূমিতে শরণাগতি মধ্যবলযুত্ত__এখানে বোধ হয় “উনি ( ভগবান্‌ ) আমার”। উদাহরণ দিতেছেন, “জোর করিয়া হাত ছাড়াইয়| চলিয়া যাইতেছ, ইহাতে বিশ্মিত হইবার কি আছে? আমার হৃদয় হইতে যদি চলিয়া যাইতে পার, তবে তোমার পৌঁরুষ আছে মনে করিব”। এখানে ভক্ত ভগবান্কে তীহার হৃদয়ের সর্ববস্বধনতাবে পাইয়াছেন-_ভগবান তাঁহারই, অস্ত কাহারও নহে। তৃতীয় ভূমিতে অধিমাত্র--শরণাগতির অবধি; এখানে বোধ হয় 'আমিই তিনি”, ইহার উদাহরণ "এই সব, এবং আমি, পরম পুরুষ পরমেশ্বর যে বাসুদেব, সবই এক, অনস্ত হৃদয়গত হইলে এইরূপ অচলা বুদ্ধি যাহাদের হয় তাহাদের ছাড়িয়া দূরে চলিয়া যাইও ( ইহা দূতের প্রতি যমের উক্তি ) ।”এইরূপ কৃত স্থান আছে। নমুনাস্বন্ূপ মাত্র এই দুইটার উল্লেখ করা হইল।এই ব্যাখ্যার মাধুধ্য সকলকেই মোহিত করে। সাধারণ পাঠক মধুস্থমযনের টীকা পাঠ করিয়া আনন্দে BS হইবেন । ইহা সকল শ্রেণীর লোকের পক্ষেই Beet | ইহা বিচারার্থীর বিচারক্ষুধা নিবারণ করিতে, শান্ত্রজ্ঞানাভিলাযীর জ্ঞানপিপাস| মিটাইতে, রসিক ভক্তের wees চিত্তকে আনন্দরসে BUG, সাধককে সাধনরহস্তের গুঢ়াছানের সংবাদ দিতে এবং সাধারণ লোকের সদ্বিষয়ে চিত্তাকর্ষণ করিতে বিশেষষ্বপে সমর্থSree Areata গীতাভায়া যত্্সহকারে আলোচনা! করিয়া তীহার পদ্বা্কানুসরণ পূর্বক ACL TAM a টাকা লিখিয়াছেন। অদ্বৈত বেদাস্তের সিদ্ধান্ত NERA কুত্রাপি ত্যাগ করেন নাই। অষ্টাদশ অধ্যায়ের ৬৫ শ্লোকের টাকায় “মামেবৈষ্বসি' অংশের ব্যাখ্যায় বলিতেছেন--"মাং ভগবস্তং বাহুদেবমেব ohh প্রাপ্ল্যসি বেদাস্তবাক্যজনিতেন মদ্বোধেন ত্বঞ্চাত্র সংশয়ং মা কার্যাঃ*। আমাকে অর্থাৎ ভগবান্‌ বাহুদেবকেই প্রাপ্ত হইবে--_বেদাস্তবাক্যজনিত মদ্‌বিষয়্ক বোধের দবারা-- ইহাতে তুমি সংশয় করিও না। ইহাই মধুস্থনের অস্তরের কথা; বাস্থদেবতত্ব বা কৃষ্ণতত্ই তাহারSARE পরমতত্ব, CAMS মহাবাক্য হইতে যে পরমতত্বের জ্ঞান হয় তাহাই এই বাহদেবতত্বের জ্ঞান। ই ভগবান্‌ বাসুদেবের বর্ণন| করিতে REET বলিতেছেন-_মামেব ভগবস্তং বাস্থদেবমীদৃশ- কলাকলাপনিলয়মভিনবপঞ্কজ শোভাধিকচরণকমলযুগলপ্রভমনবরতবেগুবাদন- দরতবৃন্দাবনজ্রীড়াসক্তমানসং হেলোদ্ধতগোবর্ধনাখ্যমহীধরং গোপালং” ইত্যাদি-_বলিয়া যেন তৃপ্তি ই। ote Reta জীচরণদর্শকের এইরূপই হইয়া থাকে।ছুই একটা স্থানে ভগবৎপাদের ব্যাখ্যা হইতে Ty এফটু পৃথক্ভাবে ব্যাখ্যা করিয়াছেনPC সেখানেও মধুছদন কত শ্রদ্ধা দেখাইবাছেন তাহা Wl যায় না। ACTA বলিয়াছেন “একই



Leave a Comment