মায়াবতীর পথে | Mayabatir Pathe

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
৪ মায়াবতীর পথেঠিক করিতে পারিতেছি না। এইরূপ খানিকক্ষণ থাকিবার পর দেখিলাম যে, সেই পুরানো পোড়ো বাড়ীর একদিকে একটি ঘরে আলো ছ্বলিতেছে, আমি তো waatca অতি সম্ভর্পণে অজানা বাড়ীর উচু নীচু ঠিক করিয়া সেই ঘরটির দিকে যাইলাম ; দেখিলাম, একটি যুবক শিব পূজা করিতেছে। আমি আশ্বস্ত হইলাম; যাহোক, মান্য দেখিতে পাওয়া গেল। আমি শিবকে প্রণাম sian অপেক্ষা করিতে লাগি- লাম। যুবকটি বাহিরে আসিল, আমি তাহার নাম ধাম ইত্যাদি জিজ্ঞাসা করায় সে আমাদের পরিচিত এক ব্যক্তির আত্মীয় বলিয়া পরিচয় দিল । তখন তো তাহাকে খুব বক্কিতে লাগিলাম-_-এই বলিয়৷ যে, সে আমাদের থাকিবার বন্দোবস্ত করে নাই কেন? সে তাড়াতাড়ি যাইয়া তাহার এক Tal মাসীকে ডাকিয়৷ আনিল । বৃদ্ধার মুখের চেহারা হইতেছে - .একখানা বারকোসে ফুটা করিয়া দিলে যাহা হয়, ছোট ছেলেরা দেখিলে ডরাইয়া উঠে। ভাষা cel কিছুই বুঝি না, কেবল মাথাটা উপর নাঁচে নাড়াইতে লাগিলাম। আমরা আকার-ইঙ্গিতে বুঝাইলাম যে, আমাদের খাইবার ও থাকিবার বন্দোবস্ত করিয়া দিক। সে একটা আলো আমনিল এবং গাছের কাঠির তৈয়ারি একপ্রকার ঝাড়, আনিয়৷ একটা দালান পরিষ্কার করিয়৷ দিল । সেখানে আমরা বিছানা পাতিয়া বসিলাম। aye কিছু কাঠ আনিয়া একটা আগুন করিয়া দিল । প্রাণেশ কিছু পয়সা দেওয়ায় বৃদ্ধা আমাদের খিচুড়ি



Leave a Comment