মধুসূদনের কবি-আত্মা ও কাব্যশিল্প [সংস্করণ-২] | Madhusudaner Kabi-atma O Kabyashilpa [Ed. 2]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
দে meu Sate ও কাব্যশিল্পউল্লেখযোগ্য যে কলকাতার বুদ্ধিজীবীমহঞ্ের কোন কোন অংশ কতৃক নিম্দিত Tare মধুস্থযন কতৃকই ইংরেজিতে অনুদ্বিত হয়েছিল । কিন্তু আরও একটি কথা মনে রাখার মত । বাংলাদেশের বুদ্ধিজীবীঞ্জেণী ইংরেজি শিক্ষা-মংস্কৃতিতে এতই VERS মুগ্ধ ছিলেন, ইংরেজশক্তির বিরুদ্ধে পূর্ণ স্বাধীনতার কথা তাঁরা চিস্তাও করতে পারেন নি। তখন বাংলা দেশের গ্রামে গ্রামে ব্যাপক কৃষকবিদ্রোহ চলেছে পুরাতন SIT থেকে মুক্ত হবার জন্য ।২ তাদের চিস্ত৷ ছিল অপরিচ্ছন্ন। তারা বিদ্রোহ করেছে, কিন্তু রেনেসান্সের নব চিন্তাধারা, বিশেষ করে জাতীয়তাবোধ, তাদের মধ্যে প্রসার লাভ করে নি। 'তাঢছ্বের এই বিস্তোহগুলি ছিল মূলত অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক নয়। নগরকেন্দ্রিক বুদ্ধিজীবীদের fowta মুক্তি এবং গ্রামের কৃষকদের অর্থ নৈতিক মুক্তির সাধনা সংযুক্ত হয়ে রাষ্ট্রনৈতিক জীবনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনতে পারে নি। আমাদের জাতীয়তাবোধ ও স্বাধীনতাঁচেতনা। তাই মবজাগৃতিকালে অপরিণতি ও দ্বিধাদীর্ণতা কাটিয়ে উঠতে পারে নি। তাই '“স্বাধীনতা'র কবি রঙ্গলালের ‘afar? কাব্য শেষ হয়েছে সিপাহী-বিদ্বরোহের বিকৃত নিন্দায় ; বৃটিশ যুবরাজের কলকাতা আগমনে হেমচন্দ্রের 'ভারতভিক্ষা” স্ততিবাচনে আক গ্লানির্র্জর-_যার ভয়ে মাথা না পারি তুলিতে হিমগিরি হেঁট বিদ্ধ্যের প্রায়, পড়িয়া যাহার চরণ-নখরে ভারত-ভূবন আজি লুটায়-_ সেই ব্রিটনের রাজকুলচুড়া কুমার আসিছে জলধি-পথে, নিরখিয়| তায় জুড়াইতে আখি, ভারতবাসীরা দাড়ায়ে পথে |আমি বংস তোর জননীর দাসী, দাসীর সন্তান এ ভারতবাসী, Dre দুঃখের যাতনা icra, Pore ভয়ের যাতনা মায়ের, স্তনায়ে আশ্বাস ষধুর স্বরে |



Leave a Comment