পৃথিবীর আশ্চর্য্য | Prithibir Ashcharjya

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
বেবিলন। 2আবার ঠিক চতুর্থ মন্দিরের উপরে উঠিলেই asa বিশ্রামের জন্য কতকগুলি বলিবার আসন আছে ।. যদি কেহ এত সি'ড়ি উঠিতে উঠিতে ক্লান্ত হন তবে বিশ্রাম করিতে পারিবেন। উচ্চতম মন্দিরটাতে বেলাসের প্রকোষ্ঠ অতি জাকজমকের সহিত সাজান । স্বর্ণনির্শ্মিত খাটের উপরে অতি উৎকৃষ্ট একখানি গদি ঠিক ঘরটার মধ্যস্থলে ছিল, তাহার Nee একখানি zits টেবিল স্থাপিত । বেলাস্‌ দেবের কোনও প্রতিমূর্তি * এখানে প্রতিষ্ঠিত হয় নাই ; কারণ, সকলেরই বিশ্বাস যে তিনি স্বয়ংই সেই উচ্চ মন্দিরে বাস করেন, তবে মর্তবাসী তাহাকে দেখিতে পায় না। স্বর্ণনির্স্মিত স্তম্ভ ও নানা, প্রকার স্বর্ণের কারুকার্য্যে মন্দিরটা পরিশোভিত। হিরোডটাস্‌ বলেন এই মন্দির নির্মাণ করিতে প্রায় বিশ কোটা পাউও্ড ব্যয়িত হইয়াছে। এই মন্দিরটি পূর্বের পিরামিড afan কথিত হইত । মিশর দেশের পিরামিডের সর্বববৃহৎটাও ইহ অপেক্ষা ছোট |এই মন্দিরের আর একটা বিশেষত্ব ছিল যাহার oe সেই যুগে ইহার এত প্রতিপত্তি । সর্বোচ্চ মন্দিরটার প্রাঙ্গণে জ্যোতিষ শাস্ত্র চর্চার উপযোগী যস্ত্রসমূহ স্থাপিত ছিল। এবং যে সময়ে দিথিজয়ী আলেকজন্দার বেবিলন নগর অধিকার করেন সেই সময়ে তাহার সহিত



Leave a Comment