সাহিত্য-পরিষৎ-পত্রিকা [ভাগ-৩৯] | Sahitya-Parishat-Patrika [Vol. 39]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
amit ১৩৩৯ ] পুরুষোত্তমদেব ৩ইহাতে বেশ বুঝা যায়, এই পাচ শ বৎসরে Gata সহিত সরস্বতীর একটা সম্ব্ধস্থাপিত হইয়াছিল । অমরসিংহ ভাষাপধ্যায়ে বালয়াছেন,_ “Bal তু ভারতী Stal WA Atel সরস্বতী | atzta উত্তির্লপিতং ভাষিতং বচন্‌ং বচঃ ॥”অর্থাৎ তখন ত্রম্মার সঙ্গে সরস্বতীর বড় কোন সম্পর্ক ছিল aii সরস্বতী ভাষার দেবতাই ছিলেন অথবা নদী ছিলেন |fapa নামের তালিকা লইয়া মূল গ্রন্থ ও পরিশিষ্টে বিস্তর ভেদ। অমরসিংহ বিষ্ণুর ৩৯টি নাম দিয়াছেন, পুরুযষোত্তম OY | এই coo বৎসরের মধ্যে পাঞ্চরাত্র নামে এক প্রকাণ্ড সাহিত্য WE হইয়াছিল, sated আমরা ২৪ খানি পাঞ্চরাত্রের নাম পাই । faz ডক্টর অটো AIGA সাহেব মাদ্রাজের আডেয়ার লাইব্রেরী হইতে অহিবু'গ্যপংহিতা নামে যে একখানি পাঞ্চরাত্রের বই ছাপাইয়াছেন, তাহার ভূমিকায় ২০০ শতেরও অধিক পাঞ্চরাত্রেের পুস্তকের নাম করিয়াছেন। পাঞ্চরাত্র Awe বিষ্ণু উপাসনার গ্রন্থ। এই উপাসনা তান্ত্রিক রীতিতে sal হইয়া থাকে । অমরকোষের ৩৯টি নামের বাহিরে যে সব নাম পুরুষোত্তম দিয়াছেন, তাহার অনেক পাঞ্চরাত্র হইতে আসিয়াছে, অনেক অপর wots “ig হইইতেও আমিয়াছে । হরিৰংশ ভাগবত হইতেও বিষ্ণুর অনেক নাম সংগ্রহ করা হইয়াছে । হরিবংশ ও ভাগবতে কৃষ্ণের অনুচরদেরও অনেক নাম সংগ্রহ আছে। পুরুষোত্তম লক্ষ্মীর যে কয়টি নাম দিয়াছেন। তাহা অমরসিংহের অপেক্ষা অনেক কম। বোধ হয়, লক্ষ্মীর উপাসনা এ সময় কিছু কম পড়িয়। গিয়াছিল ।অমরসিংহ শিবের ৪৮টি নাম দিয়াছেন। পুরুষোত্তম ৬৩টি দিয়াছেন। অমরসিংহ দুর্গার নাম দিয়াছেন ১৭টি ৷ পুরুষোত্তম দিয়াছেন ৩৭টি । ইহাতে শৈব ও শাক্ত তন্ত্রের প্রভাব প্রকাশ পাইতেছে। শৈব ও শাক্ত তন্ত্রের সংখ্যা তখনও ঠিক হয় নাই | নবম ও HAT শতকে কাশ্মীরে যে শৈব দর্শন লেখা হয়, তাহাতে প্রায় ৩০ থানি শৈবতন্্র হইতে বচন উদ্ধার করা হইয়াছে । শুধু যে. এক কাশ্মীরেই শৈব মৃত প্রচলিত ছিল, তাহা ACE | ভারতবর্ষের সর্বত্রই শৈব মত এই সময়ে মাথা তুলিয়৷ উঠে । নাকুলীশ মত, পাশুপত AS, মত্তময়ূর মত প্রভৃতি নান৷ মত নানা দেশে আবিভূত হইয়াছিল এবং তাহাতে প্রচুর তন্ত্র-সাহিত্যের স্থষ্ট হইয়াছিল 1 বড় বড় রাজারা এই সকল শৈবাচায্যের শিষ্য হইয়াছিলেন, এবং শিব ও ছুর্গার মন্দিরে দেশ ছাইয়া গিয়াছিল। প্রভাস হইতে আরভ্ভ say ভুবনেশ্বর পথ্যস্ত, canta কাশ্মীর হইতে আরম্ভ করিয়| কল্যাকুমারী পথ্যস্ত বড় বড় শিবমন্দির প্রতিষ্ঠিত হইয়াছিল । শিবের পূজা দুই রকমে হইত--_লিঙ্গ মুপ্তিতে ও বেরমৃপ্তিতে ; কিন্তু শতকরা ৮০টি লিঙ্গমুপ্তি ; বেরমুপ্তি ২০টি হইবে কি না সন্দেহ । অনেক জায়গায় শিবদুর্গার যুগলমৃপ্তি মন্দিরে প্রতিঠিত ছিল।ইন্দ্রের নাম অমরকোষে ৩৫টি, পুরুষোত্তমে ২৬টি । ইহাতে বুঝা যায়, Fema পূজা wae কমিয়৷ আসিত্েতছিল । কিন্তু অনেক জায়গায় শরৎকালের পূণিমায় ইন্দ্ধ্বজ SSS এবং সেই সময় লোক খুব আনন্দে উন্মত্ত হইত। ইন্দ্রধবজ তোলাকে “কৌমুদী মহোৎসব” afas |



Leave a Comment