প্রাচীন ভারতে নারী | Prachin Bharate Nari

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
আদর ও অধিকার ৭যোক্তে র্‌ দ্বারা পত্নীকে ৷ পুরুষের সঙ্গেই তাহার অধিকার, পৃথক নয়। একই কাজে যেমন যঞ্জমানসাধ্য For Bice তেমনি পত্নীসাধ্য Fore আছে। হারীতও যে নারীদের quote উপনয়নের অধিকার সমর্থন করিয়াছেন তাহা বুঝা যায় তাহার “ANA ব্লন্সঃ সমাবর্তনম্‌' কথাতে । বৃহদ্দেবতাতে দ্বিতীয় অধ্যায়ে ৭২-৮১ শ্লোকগুলিতে ব্রম্মবাদিনী ‘Par কথাই বণিত 1 ৮২, ৮৩ ও ৮৪ শ্লোকে বেদের কয়েকটি নারী-খষির কথা বল] হইয়াছে। তাঁহাদের নাম ঘোষা, গোধা, বিশ্ববারা, অপালা, উপনিষৎ্, নিষৎ, erate SHANA, অগস্ত্যের oi অদ্নিতি, ইন্দ্রাণী, ইন্দ্রমাতা সরমা, রোমশা, উর্বশী, লোপামুদ্ত্রা, নদীসকল, যমী, নারী শখ্বতী, শ্রী, লাক্ষা, সার্পরাষ্রী, ate, শ্রদ্ধা, মেধা, দক্ষিণা, স্থ্যা ও সাবিত্রী । ইহারা দকলেই ব্রহ্মবাদিনী বলিয়। 'বিঘোষিত-_ ঘোষা গো বিশ্ববারা অপালোপনিষন্নিষৎ। saat জুহূর্ণাম অগস্তস্ত antfafes ॥ ২, vz ইন্দ্রাণী চেন্ত্রমাতা চ সরমা রোমশোর্বশী। লোপমুদ্বাচ ADS যমী নারী চ শশ্বতী॥ ২. ৮৩ শ্রীর্লাক্ষ। সার্পরাজ্ঞী বাক্‌ অন্ধা মেধা চ af | AN zai চ সাবিত্রী ভ্রহ্মবাদিষ্য ঈরিতাঁঃ ॥ ২. ৮৪ বৃহদ্দেবতা ইহাদিগকে '“ব্রম্ধববারদিনী” বলিয়াই ঘোষিত করিলেন, সমাজেও তাঁহারা ব্রম্মবাদিনী নামেই প্রধ্যাত ছিলেন। strat নারীদের ব্রম্মবাদিনী হওয়ার অধিকার তখনও ছিল | গোভিল-গৃহম্থত্তে (২.১. ১৯) একটি মঞ্ত্রে আছে-_ প্রাবৃতাং যজ্ঞোপবীতি- নীম্‌। সেখাসে ভাষ্যকার দেখাইয়াছেন, নারীদের যন্ঞসুত্রধারণ প্রচলিত ছিল | হারীতও যে ইহ বৈধ বলিয়াছেন তাহা বুঝা যায় তাহার ‘ahaa: সমাবর্তনম্‌' এই কথায়। আপনস্তদ্ব নারীদের শিক্ষা সমর্থন করিয়াছেন ।* দুহিতাকে পণ্ডিতা করিবার ইচ্ছা থাকিলে (য ইচ্ছেদ্‌ ছুহিতা মে পণ্ডিতা জায়েত) কি করিতে হইবে তাহারও বৃহদারণ্যক উপনিষদ (৬.৪.১৭) ব্যবস্থা দিয়াছেন | এখানে মূলের উদারতাটুকু শাঙ্কর-ভায্বে দেখা যায় না। বৌধায়নেও (Je v.8) এইরূপ উদারতার অভাব দেখা যায়। মীমাংসকদের মধ্যেrr ee লা৪ qarfseta, দ্বিতীয় za, ety



Leave a Comment