অবিরত চেনামুখ | Abirata Chenamukh

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
Sore ইাটতে হঠাৎ থমকে দাড়াল ৷ ঝড়ের বাতাসে বিপন্ন কোনে) পাখি তীত্রস্বরে আর্তনাদ করে মাথার উপরে পাক খেয়ে কিছুক্ষণের মধ্যে আবার কোথায় চলে গেল ৷ চিল, শকুন অথবা কোনো শক্তিমান পাখি, চারদিকের ভয়।বহ পরিবেশে সে আরো কিছু সন্ত্রাসের সৃষ্টি করল ৷ ভয়, বিস্ময়, আতঙ্কের মিলিত অনুভূতিতে gaat কিছুক্ষণ স্থির হয়ে দাড়িয়ে থেকে আত্মস্থ হতে চাইল । আরো একটু অগ্রসর হতেই আবার একটা বিস্ময় আক্রমণ করল তাকে ৷ অদুরেই টর্চের আলোটা আছড়ে পড়ণ এক রত্রথচিত দেয়ালের গায়ে। হীরে-মুক্তো গুলি জ্বলছে প্রলোভনের হাতছানিতে । যুবকটি সাহস কুড়োল ৷ যেহেতু এখন তার বচার জন্য প্রাণপণ সংগ্রাম, মে-কারণেই কোনো বিপদে তার ভয় নেই, মুগ্ধতা নেই৷ সে এগিয়ে ata আলোকে স্থির রেখে । গভীর কোনো রহয্যকে সে খুজে পাবে ভেবেছিল, কিন্তু খুব কাছে এসে আবিষ্ক'র করল---বিষ্জ নির্জন প্রান্তরে এক নিঃসঙ্গ কবর ৷ চারটি থামের উপর age, নিচে শান-বীধানে “ai; আলো দিয়ে যুবকটি এবার চারদিক পরথ করল ৷ আকা-বীকা BAR হাতে ফারসি-মারবি শব্দধবছল বাঙলা ভাষায় পবিত্র কোরানের শপথ ৷ মাতার স্মৃতিতে মাতৃভক্ত সন্তানের শ্রদ্ধাঞ্জলি ৷ বাইরে থামে-গন্বুজে চিনেমাটির বাসন-ভাঙা টুকরোয় আলে] ফেলে Fae আবার লক্ষ করল হীরে-মুক্তোর ছটা ।সমন্ত কবরটির উপর যুবকটি হাত বুলোল ৷ কেননা, হাত বুলোতে ভালে লাগল তার। আবিষ্কার করল, এককেোণে কতগুলি গলিত মোমের স্মৃতি ৷ WANG, তৃষ্ণার্ত, ক্লান্ত শরারমনে যুবকটি এবার তার mya পেলো-- এই কবর তার আশ্রয় |তারপর বিছানা বাকৃশেোকে একপাশে সরিয়ে coy সেই অবসন্ন যুবক কবরে শয্যা নিলো। এবং সুয়ে শুয়ে ভাবতে লাগল--পথ-চল]য় যদি এত ক্লান্তি এবং কবরে যদি এত আরাম তবে আগে সে এর সন্ধান পায় নি কেন ? এবং কবরে শুয়ে যুবকটি তার প্রণয়ীর মুখ চিন্তা Fay তার সঙ্গে কাল্পনিক কথোপকথন .চলল কিছুক্ষণ। তারপর বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-পরিজন, কলকাতার সেই বন্ধগলিতে স্যাতপেঁতে ঘরের অসুখী সংসার, মার বুকে ইাপানির টান, দাদা-বোৌদির স্বার্থপরতা, ছোট ডাইপোটার টেঁচিয়ে নামতা- পড়া। একে একে অথবা একসঙ্গে সবগুলি ঘটন] রাায়ুকেন্জেপাক খেয়ে,৪



Leave a Comment