কিন্নর পাহাড়ী [সংস্করণ-১] | Kinnar Pahari [Ed. 1]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ware উড়ে বেড়াতে লাগলেন। বৃহৎ হল্ঘরে ater উচু chara খানসামারা সাজিয়ে রেখেছে নানা ভোজ্য ও পানীয়। তাই যে যার নিজে নাও। দীড়িয়ে-দীড়িয়ে থাও ৷ আর ফ্যাফ্যা করো। মনে মনে বিরাট আত্মপ্রসাদ লাভ করে৷ যে 'লাটের বাড়ীর খানা খাচ্ছি।ভাবলাম কবে পরিত্রাণ পাবে জাতি এই বাঁভৎসতা থেকে। এই Pets, সক্রুণ, ধিক্রুত, তথাক্থিত সম্মান ও সম্মানিতদের উগ্চবৃত্তি থেকে |ভেবেছিলাম, দেশ স্বাধীন হলে হবে। দেশ স্বাধীন হোলো। পণ্ডিত নেহেরুর ওখানেও waar পার্টিতে গেছি। কাঠামোটা ঠিক তাই আছে। কেবল মানুষগুলো বদলানোর দরুন প্রাণের জৌলস খানিকটা বেড়েছে বটে ।এখন আবার সেই লাট-ভবন। সেই বাগান। সেই বৃহৎ BW অদ্্রালিকা |এখানে এসে এক বিপদে পড়লাম || সিমলা তখন এমন একটি রানী, যার রাজা তিনটি । এই পাহাড়দেশে একনারীর TAMA গ্রহণ প্রথা আজও নাকি পূর্ণভাবে আছে। সে কথা পরে TACT | কিন্তু তারই প্রতীক হিসাবে সিমলা নগরীর ভর্তা তিনটি 1 একটি ভারত সরকার নিজে Sta গ্রীশন্মাবাস সিমলা ৷ দ্বিতীয় পাঞ্জাব সরকার। তারও সাময়িক রাজধানী fait তৃতীয় হিমাচল-প্রদেশ সরকার। তারও রাজধানী faa | এদের মধ্যে কৌলীহ্য আছে । ছোটো-বড় আছে। বিবাহের ক্ষেত্রে ছোটোর আদর বড়র চেয়ে বেশী। নবীনের আদ্র প্রাচীনের চেয়ে বেশী । সরকারী দৃষ্টিতে precedence এবং convention-= হোলো নজীর ও কৌলীন্তয। যে হিসাবে সিমলা নগরীর বড়কর্তা ভারত সরকার। তিনি এই তিনজনের মধ্যে সবার বড়, কেনন৷ সবার আগের নায়ক । তারপর পাঞ্জাব সরকার ৷ কিন্তু হিমাচল-প্রদেশ তো এই সেদিন জোড়াতালি মেরে দেশী রাজ্যকর্তারা রচনা করে ছেড়ে দ্বিয়েছেন। তিতুবন-ললামভূতা সিমলা নগরীকে যে এই সদ্ঞপ্রস্থত শিশু-প্রদেশটি ভোগ করছে, সে শুধু অপর নায়কদের দাক্ষি্য বলেই। . যেন ক্লিওপেট্রার শয্যায় তরুণ অক্টেভিয়াস্‌। জুলিয়াস যার নায়ক তার কোলে অক্টেভিয়াস্কে দেখলে জুলিয়াস তো হাসবেই। তাই হিমাচল-প্রদেশের মাতৰ্বরি দেখে ভারত০=



Leave a Comment