ভারতের নারী পরিচয় [সংস্করণ-২] | Bharater Nari Parichay [Ed. 2]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
৪ ভারতের নারী পরিচয়প্রচুর আলোক-সম্পাত করে। সেই আলোকে দেখা যায়, গৃহে ও সমাজে নারী-জাতির মধ্যাদা ছিল খুব উচ্চ। সম্পূর্ণ স্বাতন্ত্যয কিংবা অবাধ স্বাধীনতা অবশ্য তাহাদের ছিল না। কিন্তু AMS! যুগের ভারতীয় নারীর তুলনায় তাঁহারা! অনেক বেশী স্বাধীনতা ভোগ করিতেন। বিবাহের পর নারী স্বামিগৃহে আসিয়া সেখানকার সর্ব্বময়ী sat হইয়া বসিতেন, এবং শ্বশুর, দেবর, অবিবাহিতা ননদ, দাসদাসী প্রভৃতির উপর আধিপত্য খাটাইতেন প্রভূত | শালীনতা রক্ষা করিয়া প্রয়োজনে তাঁহারা বাড়ীর বাহিরেও যাতায়াত করিতেন aaa কি, কখনও কখনও তাহারা স্বামীর সহিত যুদ্ধযাত্রা করিয়৷ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করিতেন। একদা মুদগল-খষির বাড়ীতে কতগুলি দস্থ্য আসিয়৷ তাহার গরুগুলি চুরি sf লইয়| গেলে, খষি ও তাহার পত্নী Bacal দুইজনে একত্রে দস্থ্যদের ধাওয়া করিয়] গরুগুলি উদ্ধার করিয়া আমেন। কখনও কখনও নারীগণ গ্রামের প্রকাশ্য মেলায় বা লোক-উৎসবে ( সমন ) কৌতুক দেখিবার জন্য ভীড় করিতেন fava নামে সম্ভবতঃ আর একটি অধিকতর ব্যাপক জন-সমিতি ছিল, সেখানেও faa নারী-পুরুষ একত্রে গান গাহিতেন, খেলা করিতেন, প্রার্থনা করিতেন এবং পরামর্শও করিতেন। তখন মেয়েদের বিবাহ হইত বাল্যে নয়, যৌবনে । এ বয়সে তাহারা নিজেরাই নিজের নিজের বর নির্বাচন করিয়। লইতেন, এবং পিতা বা পিতৃস্থানীয় অভিভাবক সম্মতি দিলেই বিবাহ সম্পন্ন হইইত। কখনও কখনও মেয়েরা সমনে গিয়া নিজের নিজের বর অন্বেষণ করিতেন । অনেক সময়, CHB কেহ



Leave a Comment