পৃথিবীর ঠিকানা | Prithibir Thikana

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ঠিকানা্ন উদ্দেশেআমরা WIA কোথায় থাকি ? কোন্‌ ঠিকানায় ?থাকি পৃথিবীতে 1 পৃথিবীর মানুষ--এটাই আমাদের সবচেয়ে বড়ো ঠিকান। |পৃথিবীকে বল। হয় “ভু” । কথাটার অর্থ, “যে স্থানে সকলে থাকে” । এখনে ole সকলের Welt জায়গা এই একটিই -- পৃথিবী । তাই পৃথিবীই ভূ |ত্রিশ লক্ষ বছর ধরে আমর! মানুষর। এই পৃথিবীতে আছি | বেঁচে থাকার Ga পুরোপুরি নির্ভবব করে আছি পৃথিবীর জল-হাওয়া- মাটির ওপরে ৷ বত্রিশ লক্ষ বছর বললাম বটে, কিন্তু আমর। মানুষর। আমাদের বেঁচে থাকার ইতিহাস জ৷নি বিগত মাত্র সাত হাজার বছরের, যখন থেকে মানুষ তার ইতিহাস লিখে রাঁখতে পেরেছে | তার আগেকার কালের কোনে! লিখিত ইতিহাস নেই--সেই পুরো কালটাই “প্রাগৈতিহাসিক” (যে-সব কালের বিবরণ ইতিহাসে লেখা আছে তার আগেকার কাল )। এই প্রাগৈতিহাসিক কাল সম্পর্কে আমর । যতোটুকু জানতে পেরেছি তা সবই শিলার গায়ে টিকে থাক। কিছু চিহ্ন ও নিদর্শন থেকে |মানুষের ঠিকানা জানতে হলে এই ত্রিশ লক্ষ বছর ধরে খোজ নিতে হয়। তিরিশ লক্ষ বছর! এ যে কী বিপুল এক সময় তা যেন ভাবাই যায় না। বিজ্ঞানীর কিন্তু হাল গুটিয়ে বসে থাকেন নি, জলে-জঙ্গলে পাহাড়ে-পর্বতে অরণো্যে-মরুভূমিতে ঘুরে ঘুরে লক্ষ-লক্ষ বছরব্যাপী কালের নিদর্শন খুঁজে বেড়াচ্ছেন ।তাহলে শুধু মানুষ নিয়েই বা থাকা কেন? পৃথিবীতে মানুষ আসার আগেও তো fegafeg ছিল । সেটা কী? অনেকপ--১



Leave a Comment