খরোষ্ঠী লিপিতে রক্ত | Kharoshthi Lipite Rakta

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১৮ খরোষ্ঠী লিপিতে রক্ত“হ্য়নি। হতে পারত। খামোকা হরুবাবুর ভাইপো তপু আমাকে গালমন্দ করল।”“তপু?” গাগী চমকে উঠেছিল। “সেই গুপ্ডাটা ?”ঘনশ্যাম শ্বাস ছেড়ে বলল, “হ্যা! ছেড়ে দাও। দেশে আইন-কানুন বলে তো আজকাল কিছু নেই। আমার চৌদ্দপুরুষের ভাগ্য, গায়ে হাত তোলেনি।”গাগী ফুঁসে উঠল। “তপুকে ইচ্ছে করলে পুলিশে ধরিয়ে দিতে পারি জানো ?”ঘনশ্যাম তাকাল।গাগী চাপা স্বরে বলল, “চা খেয়ে নাও, সব বলছি।”ঘনশ্যামের যেন কোনও ব্যাপারে কৌতূহল নেই, গাগী বরাবর দেখে আসছে! ওর কেঠো নীরস চেহারার মতো যেন ওর TAI তবে নিজের কথাটা বেশি করেই বলার স্বভাব GA! অন্যের কথায় তত কান করে না।একটু পরে চায়ের কাপ ওর হাতে তুলে দিয়ে গাগী আস্তে বলল, “তুমি এত গৌতম গৌতম করো। গৌতমের খাতিরেই *জিনিসটা নিতে হলো। কী জিনিস জানো?”ঘনশ্যাম আবার নিষ্পলক চোখে তাকাল শুধু।গাগী ফিসফিস করে বলল, “তপুর রিভলভার। একটা জুতোর বাক্সয় ভরে গৌতম দিয়ে গেল। খাটের তলায় afeca রেখেছি।”“রিভলভার ?”“তাই বলল গৌতম। তপুদের বাড়িতে নাকি পুলিশ-রেড acai” গাগী দম নিয়ে বলল, “আমি সাহস পাইনি খুলে দেখতে। তুমি দেখবে তো দেখ 'গিয়ে। আর শোন! গৌতমকে বলে দিও, এভাবে যেন কক্ষণো-_”ঘনশ্যাম কেমন হাসল। “ছেড়ে দাও। গৌতম ভাল ছেলে। রেখে গেছে। নিয়ে যাবেখন 1”বাড়িতে বেআইনি সাংঘাতিক একটা চোরাই জিনিস থাকলে সব Mae মানুষের মনে একটা দুরুদুরু ভয় আর উৎকণ্ঠা থাকা স্বাভাবিক। গাগীর মনে সেটা ছিল না, তা নয়। কিন্তু গৌতমের কাছে নিঃশেষে আত্মসমর্পণ আর নিষিদ্ধ ভালবাসার গোপন সুখ সেটা চাপা দিয়ে রেখেছিল। ঘটনাটা ঘনশ্যামকে ঝৌঁকের বশে বলে ফেলে সে গৌতমের ওপর রাগ দেখিয়ে আসলে কৈফিয়ত দিতেই চেয়েছিল। কিন্তু ঘনশ্যামে এই নির্বিকার ভাব তাকে আশ্বস্ত করল।তবু MA না বলে পারল না, “গৌতম যদি এত ভাল, তা হলে গুণ্ডাদের সঙ্গে মেশে কেন? আমার কিন্তু বড্ড ভয় করছে”ঘনশ্যাম চায়ে চুমুক দিয়ে ফের সেইরকম কেঠো হাঁসি হাসল। “যখন ওটা নিয়েঃ TAR, তখন আর ভয় কিসের? জেনেশুনেই তো নিযেছ।%“কী করব?” গাগী আবার ঝাঁঝালো স্বরে বলল, “তোমার খাতিরের লোক তুমি ওকে পাত্তা দাও বলেই--এখন তো বেশ বলছ! যদি ওকে না করে দিতুম. তুমি বলতে”ঘনশ্যাম বলল, “ছেড়ে দাও।”গাগী স্বামীর এতখানি নির্বিকার আচরণ আজ Ay করতে পারছিল না। “না



Leave a Comment