হিন্দু-দর্শন ও খ্রীষ্টীয় দর্শন | Hindu-darshan O Khristiya Darshan

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
পূর্বোক্তি >বিংশ sotaa বিদ্রোহী 'দার্শনিক বলিতেছেন, সর্ব্যাঙ্গসন্দর আপুকাম ভগবানকে সকল সত্তার কেন্দ্রে বসাইলে জগতে নূতন wea স্থান কোথায়, মানুষের স্বাধীন চিন্তার অবসর কোথায়? মানুষ যদি ভগ- বানের হাতে ক্রীড়াপুত্তলিকা হয় তবে মানুষের স্বাধীনতা ও দায়িত্ব কোথায় ? ভগবান্‌ নিজে যদি সবই জানেন ও সবই করেন তবে জগঙটা তাহার ya মধ্যে ; জগতে নূতন স্ষ্টির স্থান নাই। আজকার এই গণতন্ত্রের দিনে ভগবানের একচ্ছত্র শাসন মানিবে, কেন? ভগবানে আমার কি প্রয়োজন? ভগবান থাকুন আর নাই থাকুন, তাতে আমার কি আসে যায় ? আর এক কথা । এতদিন বুদ্ধিকে বড় করিয়া আমাদের অন্তান্য বৃত্তির ন্যায্য অধিষ্কার দমন করিয়া রাখিবার চেষ্টা করিয়াছি। এখন দেখিতেছি, বুদ্ধির প্রভাব আমাদের জীবনের কতটুকু অংশের উপর ?2চির-পুরাতন বুদ্ধিবৃত্তি ছাঁড়া অন্যান্য বৃত্তি দ্বারা কি সত্যের সন্ধান হয় না ? এই বুদ্ধিবৃত্তির বিরুদ্ধেও প্রতীচ্য জগতের বিভিন্ন-শ্রেণীর দার্শনিক আজ বদ্ধপরিকর হইয়াছেন । ফ্রান্সের প্রথিতনামা মনীযী বার্গস" ( Bergson ) বলিতেছেন, বুদ্ধি বৃত্তির দ্বারা জ্ঞেয় বিষয়ের মাত্র বহিরাব- রণের জ্ঞান হয়, তাহার অস্তজাবনের জ্ঞান হয় না? বুদ্ছিদ্বারা জ্ঞাত ও CRUF মধ্যে একত্ব স্থাপিত হয় না, জ্ঞাত] ও cua বিষয়ের প্রাণের ভিতর প্রবেশ করিয়৷ তাহার মরমের বাণী জানিতে পারে না, ছুইয়ের মধ্যে পার্থক্য রহিয়া যায় এবং এই পার্থক্য প্রকৃত জ্ঞানের fag হইয়া টাড়ায়। cea বিষয়ের প্রকৃত জ্ঞান লাভ করিতে হইলে বৃদ্ধির স্তর অতিক্রম ofa এক অতীন্গ্রিয় অপরোক্ষান্তুতি বা নির্ম্িকল্প প্রজ্ঞার (intuition) wea উঠিতে হইবে। Fa দ্বারাই সত্তার প্রক্কত জ্ঞান হইবে |আর এই প্রক্বত সত্তা সম্বন্ধে att (Bergson) বলিতেছেন, যে, জড় ও বুদ্ধির মূলে এক চিরপরিবর্তনলীল জীবন-প্রবাহ ( elan vital) আছে | এজগতে কোন কিছুই স্থায়ী নহে, কোন কিছুই শাশ্বত নহে. । সবই গতিশীল,



Leave a Comment