সুবোধ ঘোষ রচনা সমগ্র [পর্ব-৪] | Subodh Ghosh Rachana Samagra [Pt. 4]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
সত্যি, ভাবলে খুবই দুঃখ হয়। এতদিন কষ্টে ছিল, তবু একটা আশা নিয়ে মেয়েটার দিনগুলি সোনার খাঁচায়...।হরেনবাবু ভোরে একটা হীপ ছাড়েন ।-তাই বলুন; আমি অবিশ্যি এদিকটা ভাবিনি।অভয় ফিসফিস করে বিমলের কানের কাছে বলে--দেখছিস, বাণীদির চোখ দুটো কেমন চিকচিক করছে।বিমল--দেখেছি; কিন্তু শৈলেশদা যে...।অভয়-কি রে? কি রে?বিমল-বাণীদির মুখের দিকে কেমন আশ্চর্য হয়ে তাকিয়ে আছেন শৈলেশদা। অদ্ভুত।অভয় বলে-সত্যি, কিন্তু কেন রে?বিমল-বুঝতে পারছি না।অভয়-বাণীদি দেখতে চমৎকার ; তাই বোধহয়।বিমল-না, সেজন্যে নয়। বাণীদির গানটা এত চমৎকার বলেই...।অভয়-একই কথা।শেখর আর নীহার এসে বলে--সেক্রেটারী শৈলেশদা কি বলেছেন, STATE?অভয়-না।শেখর-বাণীদির গানের মত চমৎকার গান শৈলেশদা জীবনে কোথাও শোনেননি।বিমল-শৈলেশদা কাকে বললেন একথা?নীহার-বাণীদিকেই বললেন।অভয়-বাণীদি কি বললেন?শেখর-বাণীদি চমকে উঠলেন।বিমল--কোন কথা বললেন A? -নীহার-না।অভয়-যাক্‌গে।বুড়ো জলধরবাবু তখন তার গলার গন্ধরাজের মালাটাকে দু'২তে আঁকড়ে ধরে খুব ভাল একটা আশার কথা বলতে শুরু করেছেন।-আমি আশা করি, আমার জায়গায় যিনি আসবেন তিনি আমার এইসব ছাত্রকে আমার চেয়ে বেশি ভালবাসবেন। তিনি যদি আমার মত বয়সের মানুষ হন, তবে তিনি যেন এইসব ছাত্রকে পুত্রবৎ মনে করে স্নেহ PAA যদি, নবীন বয়সের কেউ আসেন, তবে, তিনি যেন এইসব ছাত্রকে ছোঁট ভাইয়ের দল বলে মনে করে ভালবাসেন।অভয় Ble ব্যস্তস্বরে বলে ওঠে-ও ভদ্রলোক কে রে?বিমল- কোন্‌ ভদ্রলোক?অভয়-এ যে, দরজার ভিড়ের কাছে দাঁড়িয়ে।বিমল--কোথায় রে?অভয়-এ যে, হরেনবাবু আর অক্ষয়বাবুর চেয়ারের কাছে।বিমল, শেখর আর নীহার, তিনজনেই বলে-এ ভদ্রলোক নতুন এসেছেন বলে মনে হচ্ছে!অভয়-ভদ্রলোককে এখানে নিমন্তর করা হয়নি বোৌধহয়।বিমল--বোধহয় কেন, নিশ্চয় নেমন্তন্ন করা হয়নি। তা না হলে কি দরজার কাছে ওভাবে কেউ দাঁড়িয়ে প্রাকেঃaver. aq আমার কি মনে হচ্ছে বলবো?[Ye ete TR ।১৮



Leave a Comment