উত্তরণ | Uttaran

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১২ উত্তরণচাষের আয় থেকে সংসার চলে না ধম'দাসের, চলবার কথাও নয়, তাই ঘরে একটা গরু রেখেছে সে । দুধ বিক্রী করে। “রোজ' আছে দুটো ৷ থানায় এক পোয়া দিতে হয়, আর এক পোয়া দেয় সরকারী একটি বাবু এসেছেন--বলক অফিসর না কি, তাকে । ভোরেই দিয়ে আসতে হয়। এই কাজটিই ভৈরবীর |-_আর সংসারে কিছু কাজ নাই নাকি? মা বুড়ী গোবর দেক্‌, গুয়াল ফেলুক, আর আহলাদী বিটি বসে বসে গান শুমুক |--বেশ বকতে হবেক নাই, চল কি করতে হবেক, বাবারে Atal |!উঠে চলে গেলো ভৈরবী | পিছনে পিছনে তার মাও চলে গেলো Iনবীনের ঘরটা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব নিজেই নিয়েছে ভৈরবী | সকালে এক বালাত গোবর গুলে নিকিয়ে দিয়ে যায়। প্রত্যহ গোবর al দিলে ধুলো জমে ওঠে | তারপর তার মা যখন পুকুরে যায় তখন ঝট দিয়ে যায় ভৈরবী |আপত্তি করে নবীন । সেদিন বললো, তার চেয়ে বরং একট। AIT দিয়ে যেও |-_আমাকে ca Bea দূর করবার তরে নাকি গো ঠাকুর! মুখ টিপে হাসি গোপন করে বললো ভৈরবী |-_-ছিঃ ছিঃ ই কি কথা কইছ। ঘর ত হুমাদেরই, আমিই বরং---_থাক্‌ থাক্‌, গান গাওয়া! আর WIE দেওয়।, গোবর দেওয়া এক কাজ লয়। যার গয়না তাকেই সাজে |__না বলছি, তুমার আবার ঘরের কাজ আছে তো !-_তা থাক্‌, কিন্তু ঠাকুর, ই ঘর পরিঞ্কার করে রাখবার আক্কেল তুমার নাই। এক মাস aly ঘরে ঝট al পড়ে তবে তুমি সেই aT কাদার মধ্যেই থাকবে । বাপরে বাপ। কে “গৈড়া” (অলস ) মানুষ, এমন ছুটি দেখি নাই । কাজ করতে করতেই বলে ভৈরবী |— Sata মতনই কি দেখেছে 7একটুখানি হাসি তভৈরবীর ঠোটের প্রান্ত ছুয়ে মিলিয়ে গেল | হাতেরকাজ সমাধা হলে বালতিটা তুলে নিয়ে ভৈরবী বললো, চলি হে ঠাকুর!-__ঘসই না একটু । বললো নবীন ।



Leave a Comment