সর্ব্ববেদান্ত-সিদ্ধান্ত-সারসংগ্রহঃ | Sarbabedanta Siddhanta Sarsangraha

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
hielonaz faate ae করিয়| দিয়| থাকেন, তবে তাহা adel পরবর্তী আচার্য্যগণের বিপ্রতিপত্তি উপস্থিত হইবেই বা কেন? এতত্তিন্ন এ গ্রদন্থখানির রচনা শঙ্করাচাধ্য কৃত BID গ্রন্থের রচন| হইতে সম্পূর্ণ fog) তাহারা এবংবিধ যুক্তিবলে এই গ্রন্থখানি শঙ্কর-প্রণীত বলিতে সম্মত নহেন। ইহার উত্তরে আমরা বলি,--এ পুস্তকখানিতে যেরূপ হ্বন্দরভাবে বেদাস্তের বিষয়গুলি সর্নি- cafes হইয়[ছে এবং সরলভাবে Wag শ্নোকে লিখিত হইয়াছে, তাহাতে এই গ্রন্থথানি একজন বিশিষ্ট অতিল্ঞব্যক্তির রচিত বলিয়| বোধ হয় । বিশেষরূপে পরীক্ষা করিয়৷ দেখিলে জানিতে পারা যায় যে, শঙ্কেরের অন্যান্য গ্রন্থের সহিত ইহার অনেকাংশে ATED আছে। শঙ্করের সমস্ত গ্রন্থের ভাষা অতি পরিপাটী এবং কাব্যের রচনা] অপেক্ষা মধুর; তাই বলিয়া! আধুনিক বলা চলে না। পর- বর্তী আচার্য্যগণ শঙ্করের এক একটি বাক্য aw করিয়া ইহাই শঙ্করের মত afaal ঘোষণা করিয়াছেন, এই কারণে যে তৎকালে এই গ্রন্থ ছিল না, ইহা বলার কি যুক্তি আছে ? অপিচ শৃঙ্গেরী মঠ ভগবান্‌ শঙ্করাচা্যের প্রধান মঠ? তথায় তিনি অবস্থান করত এই সমষ্ত গ্রন্থ শিষ্যদিগকে পড়াইতেন, অবিচ্ছিন্ন তাবে সম্রদায়-পরম্পরায় যে গ্রন্থ চলিয়া আসিতেছে, তাহা উপেক্ষা করিয়া যাহা কিছু প্রতিপাদন করিবার কি কারণ বিদ্যমান আছে? ভূতপুর্ব CHa মঠের শঙ্করস্বামী একজন পরমযোগী ও গভীর পণ্ডিত ছিলেন, বিষয়বাদনা তাহার হৃদয়ে বিন্দুমাত্রও ছিল al) যাহারা সেই মহাত্মাকে একবার দর্শন করিয়াছেন, তাহারা! বুঝিয়াছেন যেন শঙ্কর পুনরায় ভূমিতলে ছবতীর্ণ হইয়াছেন। দেই মহাত্মার তত্বাবধানে শৃঙ্গেরী TT হইতে যে শঙ্করগ্রন্থসমূহ প্রকাশিত হইয়াছে, তন্মধ্যে এই গ্রন্থখানিও সন্নিবেশিত হইয়াছে; যদি এই গ্রন্থ শঙ্করপ্রণীত না| হইত, তাহা হইলে Hac জ্ঞানিশ্রেষ্ঠ স্ুধীপ্রবর শৃঙ্গেরীমঠ-স্বামী অপরের পুস্তক শঙ্করপ্রণীত গ্রন্থনিচয়ের মধ্যে সন্নিবেশিত কেন করিবেন ? এই গ্রন্থখানি শঙ্করের না হইলেও কি তাহার গৌরবের কিছুমাত্র হানি হইত ? অপিচ, অপর কোন ব্যক্তি এইরূপ একথানি উৎকৃষ্ট গ্রন্থ রচনা করিয়া স্বীয় নাম গোপনপুর্বক অপরের নামে প্রকাশ করিবেন বা কেন? তিনিই একমাত্র এই গ্রন্থথানি রচনা করিয়া স্থযীদমাজে স্ূপরিচিত হইতে পারিতেন । এতদিন বঙ্গদেশে এ গ্রন্থখানির প্রচার ছিল না; কেহই এগ্রন্থবিষয়ে সংবাদ রাখেন না; যাহারা কেবল প্রচার না দেখিয়াই--এই গ্রন্থ শঙ্করের নহে, ইহা বলিয়া থাকেন, বস্তুতঃ তাহাদের অনুকূলে যুক্তি নাই। ভগবৎপাদকবত গ্রন্থসমূহ পাঠ করিলে জানিতে পারা ay ca, যাহারা বিচার-মমর্থ এবং সুবুদ্ধি তাহাদের পক্ষে উপনিষদ-ভাষা, ব্রম্মস্থত্র- ভাষ্য ও দীতাভাষ্য বিশেষ উপযোগী, কিন্তু যাহার| সেই away অধ্যয়ন করিতে অসমর্থ, তাঁহাদের পক্ষে “পর্ববেদাস্তসিদ্ধান্তসার-সংগ্রহ” প্রভৃতি az বিশেষ কার্য্যকারী হইবে, এই অভিপ্রায়ে তিনি দ্বিবিধ গ্রন্থ রচনা করিয়াছেন। যাহারা শক্তিশালী পুরুষ, তাহারা লোকহিতের ভক্ত নানাব্ধি রচনা করিতে পারেন, তাই বলিয়! এগ্রন্থ অপর-প্রণীত ইহা বলায় স্বকীয় অদামর্থোরই পরিচয় দেওয়া হয়। এ সমস্ত দৃঢ় প্রমাণ থাকিতে কেহ যদি ইহা শঙ্করকৃত ধলিতে



Leave a Comment