শিশুশিক্ষা | Shishushiksha

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১৬ শিশুশিক্ষা তারা অন্যান্য সংবাদপত্রের মত উচ্ছ্সিত হলেন না, বা বিরোধিতাও করলেন না — সেটিই রহস্য। ২৪.৭.৪৯- এ 'সংবাদ প্রভাকর' পত্রিকায় জনৈক পত্রলেখক সেই ক্ষোভের কথাটি ব্যক্ত করলেন ঃ ........ তত্ববোধিনী পত্রিকা যাহাতে একাল AOS কেবল নানাবিধ দেশহিতজনক SAILS বিষয় প্রকটিত হইতেছে এবং দেশের কুরীতি সংশোধন ও FMS সংস্থাপন যে পত্রের প্রধানাভিপ্রায় হইয়াছে এইক্ষণে সেই পত্রের কর্মকর্তার এতন্মহদ্বিষয়ে এককালীন মৌনাবলম্বন করিলেন, ইহাতে সাধারণে বিবেচনা করিতে পারেন যে Berar বিষয় তত্ববোধিনী সভার অভিপ্রায় সিদ্ধ নহে' ব্রাহ্ম মহোদয়েরা এই ANAT উৎকৃষ্ট কর্মসাধনে কি জন্য এইক্ষণে পরাঙমুখ হইলেন তাহা GAINS কহিতে পারেন, ......... | (আকাদেমি-৮, স্বপন বসু, পৃ. ৪৪৪) অনেক সাড়া জাগিয়ে, Fe বিরোধিতার মধ্যে বেখুনের স্কুল যাত্রা শুরু করলেও পথটি ছিল উপলবন্ধুর। কারণ সে সময় সমাজে প্রবল ক্ষমতাসম্পন্ন রক্ষণশীলরা যে বাধার সৃষ্টি করেছিল, তাতে সাধারণ মানুষের মনেও দ্বিধা দেখা দিল। ছাত্রীসংখ্যা কমতে লাগল। স্বয়ং বেথুনও PWS হলেন। ভাবলেন, যদি পড়ুয়া ছাত্রীদের জন্য মাসিক ৫ টাকা বা ৬ টাকা করে বৃত্তির বন্দোবস্ত করা যায়, তবে হয়তো এই সমস্যার সমাধান করা যায়। মনের কথাটি লিখলেন লর্ড ডালহৌসিকে ২৯ মার্চ ১৮৫০-এ। ‘Every kind of annoyance and persecu- tion was set on foot to deter my friends from continuing to support the school ana with such success that at one time the number of enrolled pupils dwindled to seven, and on some occasion not more than three or four were present in the school. Al ths time the question was agitated whether or not | should offer stipends to the girls who attened, as was done on the first establishment of some of the Government College and | was assured that | would offer 5 or 6 rupees a month to each, | might count on immediately recruiting for the school to any extent that | might think desirable from Brahminical families of unquestioned caste and respectability. স্মেরণিকা, পৃ. 90-95) শুধু বেথুন নন, আরও কেউ কেউ কারণ খুঁজতে বসলেন কেন ভদ্র পরিবার থেকে আসা মেয়েদের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। একটা কারণ প্রকাশ্য স্থানে বিদ্যার্জনে অনীহা, দ্বিতীয় কারণ শিক্ষকের কাছে পড়ার ক্ষেত্রে সঙন্কোচ। শিক্ষকদের বদলে শিক্ষিকা নিয়োগ করলে সুফল ফলতে পারে বলে “সংবাদ পূর্ণচন্দ্রোদয়' পত্রিকায় মত প্রকাশ করা হল ১৪.৫.১৮৫০-এ। 'আমাদের বোধহয় এ দেশের সরবর্বসাধারণ ভদ্রলোকেরা যদিও বালিকাদিগের শিক্ষাদান বিষয়ে বিমত নহেন তথাপি প্রকাশ্য স্থানে বালিকা প্রেরণ করিতে অসম্মত আছেন এবং তাহা ভদ্র পরিবারের যোগ্য এমত জ্ঞান করেন না, ...... অতএব আমরা অনুমান করি স্ত্রী বিদ্যালয়ে এক্ষণে যে প্রকারে বালিকাদের শিক্ষাদান হয় ইহার পরিবর্তে এ বিদ্যালয় acer স্কুল হইয়া তাহাতে কতকগুলি শিক্ষক৷ (শিক্ষিকা) age করিলে যথার্থ ফল Hee পারে ও দেশের মধ্যম জাতীয় মধ্যম বৃত্তি স্ত্রী লোকেরা প্রকাশ্য স্থানে গমনাগমন OPT দোষ জ্ঞান করে না তাহারা অনায়াসে গিয়া উত্তমরূপে শিক্ষা করিয়া শেষে শিক্ষাদায়িনী হইতে পারিবেক এবং তাহাদের হইতে যে শিক্ষা হইবেক তাহা কেবল বালিকাদের প্রতি না হইয়া অডঃপুরস্থা যাবদীয় অবলাদেরও প্রতি অশিতে পারিবেক .....।” (সা.বা.স-৩, পৃ. ৬৭) ঈশ্বর গুপ্তের কথা বলি। যে মানুষটি রক্ষণশীলদের সঙ্গে কাধে কীধ মিলিয়ে চড়া সুরে স্ত্রীশিক্ষার বিরোধিতা করেছেন, এমনকি 'রাত্রিকালে বৈকালে অবাধে প্রতিদিন বারেক দুইবার যাইয়া গুণবতীদিগের গুণের পরীক্ষা নেবেন বলে ঘোষণা করেছিলেন, যিনি ছড়া কেটে ভবিষ্যৎবাণী করেছিলেন — “যত ছুঁড়ীগুলো Bet মেরে কেতাব হাতে নিচ্ছে যবে,/এ বি শিখে, বিবী সেজে, বিলাতী বোল কবেই কবে; সেই তিনিই নিজেকে আমূল পাল্টে ফেললেন। বেধুনের প্রয়াসকে স্বাগত তো জানালেনই, উপরত্ব বিরোধীদেরও সমালোচনা শুরু করলেন। 'সাংবাদ প্রভাকর” - এর সম্পাদকীয়তে দেখা দিলেন এক নতুন ঈশ্বর OG “............... আমরা স্থির নেত্রে পুরুষ জাতির বিদ্যাশিক্ষার বিবিধ উপায় অবলম্বন করত যেরূপ সুখানুভব করিতাম, স্ত্রীজাতির বিদ্যাশিক্ষার উপায়াভাব জন্য সেইরাপ দুঃখিত ছিলাম, কিন্তু মান্যবর OR জে ই ডি cage সাহেব আমারদিগের সেই দুঃখ নিবারণের জন্য fea প্রতিজ্ঞ হইয়াছেন, তিনি প্রথমতঃ আপনার অর্থব্যয় দ্বারা এই মহানগর কলিকাতা মধ্যে বালিকা বিদ্যালয় স্থাপন করেন, তাহার Atte সময়ে এতঙদ্দেশীয় দলাদলি প্রিয় মহানুভব মহাশয়েরা তাহার



Leave a Comment