হিন্দু আইন [সংস্করণ-২] | Hindu Ain [Ed. 2]

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
হিন্দু আইনের উৎপত্তি ও উপকরণ ৩তথাপি নিবদ্ধকারগণ স্থানে স্থানে মূল স্থতিশাস্ত্রের অনেক পরিবর্তন করিয়া দিয়াছেন | স্থানে স্থানে অনেক নৃতন কথাও সংযোগ করিয়াছেন। স্থতিসমূহ যে সময়ে লিখিত হইয়াছিল, তাহার বহু Teta পরে নিবন্ধ- *্কারগণ জন্মগ্রহণ করিয়াছিলেন, এই সময়ের মধ্যে প্রাচীন রীতিনীতির অনেক পরিবর্তন ঘটিয়াছিল। বোধ হয়, সেই কারণে নিবদ্ধকারগণ তাহাদের সমসাময়িক সামাজিক রীতিনীতির প্রতি দৃষ্টি রাখিয়া উক্ত সমাজের মতাঙযায়ী করিবার নিমিত্তই প্রাচীন শাস্ত্রসমূহের এরূপ পরিবর্তন এবং স্থানে স্থানে নূতন বিষয় সংবোজনা করিয়াছেন। এই নিবন্ধগুলিই হিন্দু আইনের সর্বশেষ্ঠ উপকরণ এবং আইন হিসাবে স্থৃতিসমূহ অপেক্ষাও এগুলি অধিক মূল্যবান্‌। যদি কোনও বিষয়ে স্মৃতি এবং নিবন্ধের মধ্যে মতভেদ লক্ষিত হয়, তাহা হইলে নিবন্ধের মতই গৃহীত হইবে |নিবন্ধ বহুসংখ্যক আছে, তন্মধ্যে কতকপুলির নাম উল্লেখযোগ্য, যথা--জীমুতবাহন প্রণীত “দায়ভাগ”; বিষ্ঞানেশ্বর প্রণীত “মিতাক্ষরা”; রঘুনন্দন প্রণীত “দায়তত্ব”; শ্রীরুষ্ণ প্রণীত “দায়ত্রম-সংগ্রহ”; বাচস্পতি মিশ্র প্রণীত “বিবাদ-চিন্তামণি” : দেব।নন্দ ভট্ট প্রণীত “স্থতি-চন্দ্রিকা” : poeta প্রণীত “বিবাদ-রত্নাকর” ; মিত্রমিশ প্রণীত “বাঁরমিত্রোদয়” প্রভৃতি । এই সমস্ত গ্রন্থগুলি সকল দেশে সমানভাবে প্রচলিত নহে; কোনটা বঙ্গদেশে প্রচলিত, কোনটা বা মিথিলায় প্রচলিত, “eat | বঙ্গদেশে দায়ভাগ, দায়তত্ব, দায়ক্রমসংগহ এবং বাঁরমিত্রোদয় এই চারিটী গ্রন্থ প্রচলিত; তন্মধো দাস্থয ভাগই সর্বশ্রেঠ। যদি কোনও বিষয়ে এই চারিটাী গ্রন্থের মধ্যে মতভেদ Ye হয়, তাহা হইলে দাঁয়ভাগের মতই গৃহীত হইবে৷ * একাদশ শতাব্দীর শেষভাগে এবং দাদশ শতাব্দীর প্রথমে, * অর্থাৎ আট, শত বৎসর পূর্বে জীমূতবাহন কর্তৃক দায়ভাগ রচিত হইয়াছিল | ইহা প্রধানতঃ awrfeota টীকা



Leave a Comment