বর্ধমান মহাবীর | Bardhaman Mahabir

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১২ adata মহাবীরশ্লাঘ্য আমার জীবন। চোখের জলের মধ্যে দিয়ে হালি ফুটে উঠল আবার বত্রিশলার মুখে ৷ তিনি সিদ্ধার্থের হাত ছেড়ে দিলেন | বললেন, ব্যাধ ভয়ে ভীতা হরিণীর মত আমার aq কিন্তু না, আর ভয় রাখব না।ভয় রাখবেনও বা তিনি কি করে? কারণ যে আসছে দে fen করতেই আসছে এই পৃথিবীকে |আশ্বিনের কৃষ্ণা ত্রয়োদশীর পর এল চৈত্র শুরু ত্রয়োদশী, 3 জন্মেয় ঠিক ৫৯৯ বছর আগে । ব্রিশলা বসেছিলেন অলিম্দে। এমন সময় প্রসববেদনা উঠল। প্রদববেদনা উঠতেই তিনি তাড়াতাড়ি গিয়ে প্রসবঘরে ঢুকলেন।তারপর দেখতে দেখতে প্রসব হয়ে গেল। এতটুকু কষ্ট হল না। ঘরে তখন গাঢ় চন্দনের গন্ধ উঠেছে। ঘরের মণিদীপের আলো অলৌকিক একটা জ্যোতিতে যেন Bical etme হয়ে উঠেছে |আর বাইরে? বাইরে তখন meaty প্রায় পূর্ণাবয়ৰ Gre মাথার ওপর উঠে এসেছে । মেঘহীন আকাশে কেবল তারই নির্মল WHT! কোথাও এতটুকু আবরণ aes সেই easy অদৃষ্ত RH গেছে তারার ঝাক। ধপপ, করছে মাঠ, ঘাট, বাট।₹স্তোত্তরা উত্তরা-ফাল্তুনীর যোগে এল নবজাতক, এল মহাজীবন |সিদ্ধার্থ বিশ্রামাগারে ছিলেন = পরিচারিিকা প্রিয়ভাষিতা সেই STARA তার কাছে বহন করে নিয়ে এল |সিদ্ধার্থ ক১ হতে সাতনলী হার খুলে পুরস্কৃত করলেন প্রিয়-ভাষিতাকে। তারপর উঠে গেলেন নবজাতককে দেখবার জন্তু |শুধু fares নন, নবজাতককে দেখবার ow এসেছেন আরও অনেকে ৷ মন্ত্রী এসেছেন, এসেছেন সামস্ত ন্বপতিরা আর পুরঞ্ছন | আরও আগে অলক্ষ্যে এসেছিলেন দেবনিকায় সহ মদেবয়াজSa |



Leave a Comment