গোপাল হালদার রচনাসমগ্র ২ | Gopal Halder Rachanasamagra 2

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
বাঙলা ভাষা ও বাঙালীর সাহিত্য ৫যে-ভাষার নামকরণ করেছেন “ইন্দো-এরিয়ান্‌' বলে, আমর! তাকে এ নামে অভিহিত করতে চাই ), তখন “প্রাচীন স্তর' ও “মধ্য স্তর' উত্তীর্ণ হয়ে উত্তর ভারতে “আধুনিক স্তরে' এসে পৌঁছয়। এই হিন্দ_-আর্য ভাষারই প্রাচ্য শাখার এক প্রধান প্রতিনিধি বাঙলা! ( বা “বঙ্গ ভাষ!' )। ভাষা হিসাবে বাঙলা ভাষা কিন্তু কুলীন নয়। 'হিন্দ-আর্য ভাষা'র প্রাচ্য শাখা আদৌ কুলীন বলে গণ্য হত না ; তার কারণ, বাঙালী জাতটাও আসলে বড় বেশী কুলীন জাত নয়।বাঙলা দেশ ও বাঙালী জাতিকারা বাঙলা দেশের প্রাচীনতম অধিবাসী, আর বাঙালীর রক্তে কোন্‌ রক্ত কতটা আছে, এ-বিচার নৃ-বিজ্ঞানের | তবে এ কথা মনে রাখতে হবে-_ 4 বাঙলা! দেশের আদিবাসী তারা এই বাষ লা] Stal বলতেন না, মূলত তার! “few -আর্ষ'-ভাষী ছিলেন না। নৃ-বিজ্ঞানের মতে বাঙলার প্রাচীনতম অধিবাসীরা সম্ভবত ছিলেন অস্ট্ট্রিক গোঠার অস্ট্রে-এশিয়!টিক্‌ জাতির মানুষ ; তারা ব্র্মদেশ ও শ্যামদেশের CAT এবং কদ্বোজের (GSA ইন্দো-চীনেব) CMA শাখার মানুষদের আত্মীয় । এ জাতাীয় মানুষকেই বোধহয় Jen হত 'নিষাদ', কিছ্ধ| ‘aty ; আর পরবতা কালে ‘cata’, ‘for’, ইত্যার্দি। তা হলে SETA FT] যেতে পারে, তাদের orate ছিল অস্ট্্রিক গোষ্ঠীর cata-cwa- শাখার ভাষার মতোই | অনেকটা এরূপ SATS এখনে। বলেন বাঙলা দেশের পশ্চিমে কোল, মুণা, esta প্রভৃতি আদিবাসীরা, আর পূর্ব বাঙলার (এখন আসাম রাজ্যের) খাশিয়] পাহাড়ের খাশিয়ারা। অস্ট্রিক গোচঠী ছাড়াও বাঙলা দেশে বাস করতেন দ্রাবিড় গোষ্ঠীর বিভিন্ন শাখার লোকেরা । Stay ছিলেন FAS SISA মানুষ । তাদের প্রধান বাসভূমি এখন দাক্ষিণাত্য; তাদের প্রধান Ste এখন তামিল, copa, মালয়ালাম ও ক্ড়ী । কিন্তু এক সময়ে তার] সম্ভবত পশ্চিম Fle Ay ও মধ্য বাঙলায়ও'ছড়িয়ে পড়েছিলেন | এখনো ছোটনাগপুরের (বিহার রাজ্যে) ওরাও প্রভৃতি জাতেরা দ্রাবিড় 'গোষ্ঠীরই একটা ভাঙা ভাষা বলেন। অস্ট্রো-এশিয়াটিক ও দ্রাবিড় ভাষীর। ছাড়:ও পূর্ব ও উত্তর ae atl Ws পূর্বকাল থেকে নান! সময়ে এসেছিলেন মঙ্গোলীয় বা ভোট-চীনা]গোঠ্ীর নানা জাতি-উপজাতি--যেমন গারো, বড়ো, কোচ, cae, কাছারি, টিপ রাই, orem প্রভৃতি । সম্ভবত এ"দ্বেরই বলা হত “fears জাতি | এ"রা ভোট-চীন! গোঠীর নানা ভাষা-উপভাষা| বলতেন।



Leave a Comment