ডাক্তার জনসনের ডায়েরী | Daktar Johnsoner Dayeri

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
২০শে জুন ? ১৮৯৮জামদা থেকে হাডসনের সঙ্গে ঘোড়ায় চড়ে আসতে বেশ মজা লাগল। এখানে ওখানে পাহাড়গুলে৷ ছড়িয়ে আছে। মাঝে মাঝে সমতল । কোথাও বা ছ'চারটে জলের ধারা চোখে পড়ে | ইটের রঙের মত জলের রঙ এখানে ৷ হাডসন বললেন, এখানকার পাথরে নাকি প্রচুর লোহ। আছে।পথের মাঝে এক পশলা বৃষ্টি হয়ে গেল। ভালই হল। যে রকম রোদ চড়তে আরম্ভ করেছিল, তার ভেতর এতটা পথ আসা সত্যিই কষ্টকর হত। Mews ধন্যবাদ, মেঘ করে বৃষ্টি এল। পাহাড়ের ওপর যখন মেঘ জমে উঠছিল তখন আমি অবাক হয়ে তাকিয়েছিলাম সেদিকে । ছোট এক PST মেঘ দেখতে দেখতে কৃত বড় হয়ে গেল। কয়েক মিনিটের ভেতর পাহাড়ের কোল বেয়ে নামতে লাগল সে মেঘ । গুরু-দেহ পাখি যেমন পায়ের ওপর ভর রেখে কিছুটা দৌড়ে এসে আকাশে ডানা মেলে দেয়, ঠিক তেমনি পাহাড়ের কোল বেয়ে খানিকটা নেমে এসেই মেটা যেন পাখা ঝাপটে উড়ে আসতে লাগল। শে। শে! শব্দ উঠল। BOAT ঘোড়া থেকে নেমে পড়লেন। আমাকেও নামতে বললেন । পথের পাশে কয়েকটা শালের গাছ জটলা! করে দাড়িয়েছিল। আমরা Sta আশ্রয়ে গিয়ে দাড়ালাম। cater ছুটোকে সেই গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখলাম।মুক্তোর দানার মত এক সময় বৃষ্টি ঝরতে লাগল। প্রথমে বড় বড় CAB, তারপর অঝোর ধারায়। যেদিক থেকে বাতাস বইছিল আমরা তার বিপরীত দিকে দাড়িয়েছিলাম। ইচ্ছে করছিল, একটু জলে ভিজি ৷ হাডসনকে আমার ইচ্ছের কথাটা জানালাম।হাডসন হেসে বললেন, ডাক্তার, চিকিৎসার গোড়ার Fel হল প্রকৃতি সম্বন্ধে খু টিনাটি জানা। তারপর ওষুধের কথা |৫



Leave a Comment