হিন্দু আইনে বিবাহ | Hindu Ayine Bibaha

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
Se হিন্দু আইনে বিবাহসমাজ ক্রমশ AWS) হয়ে উঠতে সংরক্ষণের যুগ এল। সংরক্ষণ করতে গেলেই সমাজের চার পাশে এক-একটি গণ্জীর রেখা টানতে হয়; এবং সেই সঙ্গে বিভিন্ন শ্রেণীবিভাগেরও দরকার হয়ে পড়ে। কারণ, নানা রকম বিচিত্র লোককে একত্র করেই তো সমাজ। আর লোকস্থষ্ট তো .বিবাহেরই ফল। wort বিবাহ-ব্যাপারে যে বেশ খানিক বিধিনিষেধের আমদানি হবে, তাতে আর আশ্চর্য কি? এই সঙ্গে স্থতিকারর| একটু কৌশল খেললেন | বৈদিক যুগের যেসব উদার আচার- ব্যবহার ছিল সে মম্বদ্ধে স্বতিকাররা সোজাস্থজি বলে বসলেন, “এখন কলিযুগ, এ যুগে আর ওসব কিছু চলবে না ।”হিন্দু আইনের প্রথম কথা, হিন্দু পাত্রের সঙ্গে হিন্দু পাত্রীর বিবাহই হল হিন্দু বিবাহ। হিন্দুর সঙ্গে অহিন্দুর বিবাহ যে হিন্দু বিবাহ ময়, সে কথা বোধ করি কাউকে খুলে বলে দিতে হবে না। তবে হিন্দু যে কে, তা নিয়ে অনেক তর্কবিবাদ আছে। হিন্দু যে কে নয়, সেটা আমরা বেশ জানি। কিন্তু হিন্দু যে ce, তার ব্যাখ্যা করতে গেলেই বিপদে পড়ি। আমি ইচ্ছে করে সে fare টেনে আনতে চাই নে বলে ও-বিষয়ে আর কিছু উচ্চবাচ্য করছি না। শুধু একটা কথা বলে রাখি, হিন্দু নামটা এ দেশীয় নয়। বেশি প্রাচীনও নয়, খুবই অর্বাচীন ৷ মুসলমানরা প্রথমে সিন্ধুনদের এপারের লোকদের হিন্দু নামে অভিহিত করতে থাকেন। কালক্রমে যখন এ দেশে মুসলমান রাজত্ব কায়েম হল তখন অমুসলমান ভারতবাসীদের সংজ্ঞা হিসাবে হিন্দু নামটি চালু হয়ে CAT | এখনো ইওরোপের কট্টিনেণ্টে ও আ্যামেরিকায় সমস্ত ভারতবাসীই হিন্দু নামে পরিচিত, ধর্ম তাঁদের যাই হোক-না কেন।হিন্দু বিবাহে প্রথম নিষেধ অসর্বর্-বিবাহ । গোড়ায়, অর্থাৎ বৈদিক যুগে, বর্ণ মাত্র ছুটি ছিল। সাদা আর seni att ও wats



Leave a Comment