বিচিত্র এ দেশ | Bichitra E Desh

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
১৮সম্ভার, AH ও সম্ভীর আনন্দলোক,-_-এদিক থেকে কাশ্মীর অদ্বিতীয় | এ-ছাড়৷ আধ, হিন্দু, বৌদ্ধ, গ্রীক, পাঠান ও মোগলগণের স্থাপত্য শিল্পে কাশ্মীর স্থসমৃদ্ধ। কাশ্মীরের কবি ও এতিহাসিক কহলনের 'রাজতরঙ্গিণী'তে পাওয়া যায় যে, চতুর্দশ শতাব্দীতে হিন্দুরাজত্তের শেষদিকে উত্তর-পশ্চিমের পার্বত্য-বর্বরজাতি দামারাস ও তাস্ত্রীয়রা বার বার কাশ্মীর আক্রমণ করে। তারা লুটতরাজ, অগ্নিসংযোগ, লোকহত্য৷ এবং নারীহরণের দ্বারা রাষ্ট্রকে অচল ক'রে দেয়, এবং fared বছ স্থাপত্য-ঝকাতি ও কারুশিল্প ধ্বংস করে। কহলন বলেন, জনৈক তাতার-যোদ্ধা, জুল্ফি কাদির খান, চতুর্দশ শতাব্দীতে কাশ্মীর BIST ক'রে প্রায় এক লক্ষ Spice ক্রীতদাস স্বরূপ নিয়ে যান, কিন্তু পথিমধ্য হিম তুযারের গর্ভে তার সঙ্গে বিরাট সেই জনতা বিলীন হয়ে যায়। কাশ্যারের ভূতপুব প্রধান মন্ত্রী পণ্ডিত রামচন্দ কাক তার বইয়ে লিখেছেন, ৮তুদশ শতাব্দার শেষভাগে কাশ্মীরের শাহ শিকান্দার বহু প্রাচীন স্থাপত্য-শিল্প ও মন্দির ধ্বংস করেন । সেই ধ্বংসের ভিতর থেকে আজও যেগুলি সেদিনের সাক্ষ্য দেয়, সেগুলি হোলো alee মন্দির, পুগুরাস্থান, গণেশবল ও ব্রণবিহার ইত্যাদি |কাশ্মীরকে কেউ বলেন, প্রাচ্যের নন্দন-কানন; কেউ বলেন BAA | সাধারণভাবে কাশ্মীরের CHUL নানাভাবে উপভোগ করা যায়, চৈত্র মাস থেকে অগ্রহায়ণ মাসের মাঝামাঝি সময় wae বাকি সময়টায় শীতের প্রাবল্য থাকার জন্য যাত্রীদের পক্ষে অস্থবিধা হয়। এই উপত্যকায় ফুসের প্লাবন আসে বসন্তকালে এবং ভরাভাদ্রে সমস্ত হুদ শতদল-পদ্মে ভরে ওঠে । ভারতবধের অন্যান্য অঞ্চলে হিন্দুর! যেমন দেবতার প্রতিষ্ঠান বেছে নিয়েছে সাগরের বেলাতূমিতে, fer দুর্গম পর্বতের চুড়ায়, অথবা বিস্তীর্ণ নদীর উপকূলে, অথবা অরণ্য-লোকে, তেমনি কাশ্মীরের হিন্দুরাও মন্দির ও sare পাযাণকীতি স্থাপন!বিচিত্র এ দেশ



Leave a Comment