অনেক সুর | Anek Sur

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
কিছু। সেই সাত সকালে সেই যে দে গুরু করেছে ধোয়া মোহ, এতোক্ষণে তার নিবৃত্তি। ঘরদোর সব ফকিটফাট। oeঘরে আজ লক্ষ্মী দেবী আসবেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন-পবিত্র পরিবেশ চাই ।-_সকাল থেকেই এই একই কথা আজ বার বার বলে চলেছে বুধুর মা। ' /বুড়িমা কিন্তু তেমন খুশি হতে পারেন নার বৃধুর মা'র কথায়। তিনি যে আসলেই অধুশি ৷ নাতনির নয়, নাতির মুখ দেখে বিদায় নেবেন সংসার থেকে, এই ছিলে তার apn কিন্তু তাঁ আর পুরণ হবার নয়। বিয়ের আট বছর পর ছেলের ঘরে এই প্রথম সম্তান। আবার কতে বছর পর কি হবে, তার আবার কী OAT | তাই বুড়িমা”র মনে EI! অবশ্য মুখ ফুটে কখনে! তিনি বলেন নি তেমন কিছু। কীই বা আর বলবেন ] যে এসেছে তাকে তো সাদরে বরণ করে নিতেই হবে।বুধুর মা কিন্তু বুড়িমা*র মনের খবর টের পেয়েছিলো ঠিক ঠিক মতো। ভার হাবভাব দেখেই ধরতে পেরেছিলো। তাই তাঁকে বলছিলো ঘর মুছতে মুছতে-_মানুষের মনে Wi আশা তার কতোটুকুই বা আর পুরণ হয় ঠাকুমা। এই আমার কথাই ধরুন না, কতো কি ভেবেছিলাম আর কী হয়ে গেলো!ঠিকই বলেছিস পংকি, সংসারের ছ্বালা-যন্ত্রণা কিছুটা ভুলে থাকার জন্যেই আশার ছলনা । ও সত্যি কিছু নয়, কিছু নয়।-_ পংকজিনী নামটাকে একটু সংক্ষিপ্ত এবং সহজ করে নিয়ে বুড়িম) পংকি বলেই ডাকেন বুধুর মাকে |বুড়িমা ও বুধুর মা*র মধ্যে যখন এ ধরনের কথাবার্তা হচ্ছিলো ঠিক তখনই বাড়ির গেটে মোটর গাড়ির হর্ণ। হাতের কাজও ঠিক তখনই শেষ হয়েছে বুধুর মায় । গাড়ির হণ শুনেই সে নিচে চলে যায় এক দৌড়ে। জাপটে ধরে ধীরে ধীরে ঘরে তুলে নিয়ে আসে মা ও মেয়েকে একসঙ্গে ।



Leave a Comment