শত শহীদের রক্তে | Shata Shahider Rakte

বই থেকে নমুনা পাঠ্য (মেশিন অনুবাদিত)

(Click to expand)
ভয়ে আনন্দের যে উৎস হতে বঞ্চিত হয়ে অমানিশার অন্ধকারের মত বিষ্জতার ঘোর কালিমা Bera বহন করছিল এবার তা ধীরে ধীরে অপস্থত হতে লাগলো |এই সময়ে দমিপাইদের মত বৃটিশ সরকারও অত্যন্ত আতঙ্কিত za | সিপাইদের উত্তেজনা, এর ওপর দিপাইদের অবাধ্যতা দেখে সরকারের আশঙ্কা HA গভীরতর হয়ে উঠল।এই আশঙ্কার ANE সরকার সবিশেষ ধীরতার সঙ্গে কাজ করতে পারেননি। প্রধান প্রধান ইউরোপীয় সৈনিক পুরুষদের অজ্ঞাতসারে সরকার আত্মরক্ষার চেষ্টা করছিলেন । কিন্তু fata, সকল জায়গা হতেই খবরাখবর সংগ্রহ করতেন |নগরে নগরে যা ঘটতো CA সব কর্তৃপক্ষ জানবার আগেই পিপাইর। জানতে পারতেন!রেঙ্গুন হতে ইউরোপীয় সৈন্যের আসার খবর সেনাপতি ছহিয়ারসে আগে জানতে পারেননি |এদিকে প্রতি সৈনিকনিবাসে এ সম্বন্ধে আন্দোলন হচ্ছিল! সিপাইরা সরকারের অভিসন্ধির ওপর সন্দেহ করে BNE আর তুলনায় অধিকতর বিরক্ত, অধিকতর শঙ্কান্বিত এবং অধিকতর অলাপ্য হয়ে উঠছিলেন।ব্যারাকপুরের সিপাইরা কিছুদিন শান্ত ভাবে রইলেন ৷ নারবে নিজেদের জাতি, বংশমধ্যাদ৷। এবং সকলের অপেক্ষা প্রিয়তর ধর্মরক্ষার জন্য AVS হতে লাগলেন। ঘটনাক্রমে সংক্রামক হয়ে উঠেছিল। কলকাতার সিপাইগণও ব্যারাকপুরের সিপাইদের মত ভীত ও BAER হয়ে উঠলেনগভণর জেনারেল লর্ড ক্যানিং ১৫ই মার্চ তারিখে প্রধান সেনাপতিকে লিখলেন, ‘sone দিপাইদল, ২নং দলের লিপাইদের সঙ্গে ভোজন করতে রাজী ইয়নি। এমন কি ৭০নং সিপাইদের কেউ কেউ ২নং fants দলের লোকেদের টোটা কাটতে নিষেধ করেছে |’৬



Leave a Comment